যুক্তরাষ্ট্র থেকে মামলার হুমকি দিলেন শাকিব খান!

ঢাকাই সিনেমার শীর্ষ নায়ক শাকিব খান চলতি বছরের ১২ নভেম্বর প্রথমবারের মতো যুক্তরাষ্ট্রে গেছেন। বর্তমানে সেখানেই অবস্থান করছেন তিনি। এরমধ্যেই বেশ কিছু খবর ছড়িয়েছে যা নিয়ে বেজায় চটেছেন এই নায়ক। এমন বিভ্রান্তি ছড়াতে থাকলে আইনি ব্যবস্থা নেবেন তিনি।

যুক্তরাষ্ট্রে গেলেও সেখানে বসেই ‘গলুই’ সিনেমার ডাবিং শেষ করেছেন শাকিব। নির্মাতা এস এ হক অলিক যুক্তরাষ্ট্রে গিয়ে ডাবিং করিয়েছেন। বিষয়টি নিয়ে এক বর্ষীয়ান নির্মাতা শাকিবের ওপর বেশ ক্ষেপে যান। এই তারকাকে ‘থা প্পড়’ পর্যন্ত দিতে চেয়েছেন ওই নির্মাতা।

এছাড়া সম্প্রতি আরও একটি খবর ছড়িয়েছে সিনেমা পাড়ায়। শাকিব খানের নায়ক হয়ে ওঠার গল্প নিয়ে তৈরি হবে বায়োপিক ‘স্টোরি অব শাকিব খান’। পরিচালক সমিতিতে সিনেমাটির নামও নিবন্ধিত হয়েছে। এটি নির্মাণ করতে চান এফ আই মানিক।

এসব নিয়ে বেজায় চটেছেন সুপারস্টার নায়ক শাকিব খান। তিনি মামলা করবেন বলেও হুমকি দিয়েছেন। সিনে খবর নামের একটি ই-মেইল থেকে পাঠানো বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, এটি শাকিব খানের ঘনিষ্ঠজন পরিচালনা করেন।বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, শাকিব খানের ভাষ্য, চলচ্চিত্রের কতিপয় মানুষ নানা বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে তাকে নিয়ে।

গত নভেম্বর থেকে যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করা এই নায়ক বলেন, ‘এক সিনিয়র নির্মাতা ঘোষণা দিয়েছেন আমার বায়োপিক নির্মাণ করবেন। অথচ এ বিষয়ে আমি কিছুই জানি না। কারও বায়োপিক নির্মাণ করতে গেলে তার অনুমতি নিতে হয়। তিনি কী আমার অনুমতি নিয়েছেন? এটি দেশের মানুষের কাছে আমার ইমেজ নষ্ট করার ষড়যন্ত্র নয় কি? এ ধরনের ষড়যন্ত্র আর মেনে নেওয়া যায় না।

দেশীয় চলচ্চিত্রের কারও বায়োপিক যদি নির্মাণ করতে হয় তাহলে নায়করাজ রাজ্জাক, আলমগীর, ফারুক, সোহেল রানা, ববিতা, শাবানা, কবরীদের মতো কিংবদন্তি শিল্পীদের নির্মাণ করা উচিত। আমাকে নিয়ে কেন?’

তিনি আরও বলেন, ‘আমি উদ্বেগের সঙ্গে লক্ষ্য করছি বেশ কিছুদিন ধরে আমার দেশে না থাকার সুযোগে চলচ্চিত্রজগতের কেউ কেউ আমাকে নিয়ে অনাকাক্ষিতভাবে মিডিয়ায় বিভ্রান্তিমূলক কথাবার্তা ছড়াচ্ছেন। এর মধ্যে আরেক নির্মাতা আমার বিদেশে যাওয়া, সেখানে বসে ছবির কাজ করা নিয়ে মিডিয়ার কাছে অনভিপ্রেত কথা বলেছেন। যা অন্যকে অন্যায়ভাবে আক্রমণ করা ছাড়া আর কিছুই নয়।

আমি এ ব্যাপারে সতর্ক করে দিয়ে বলতে চাই যারা আমাকে নিয়ে ষড়যন্ত্রের জাল বিছাতে চাইবে তাদের বিরুদ্ধে আমি আইনি ব্যবস্থা নেব। মানহানি ও সাইবার ক্রাইম অ্যাক্টে মামলা করব। ইতিপূর্বে আমার স্টারডাম ক্ষুণ্ণ করতে অনেক ষড়যন্ত্র হয়েছে। এসব আমি আর মুখ বুজে সহ্য করব না।’

শাকিব খান কর্মজীবনে একাধিক পুরস্কার অর্জন করেছেন, যার মধ্যে রয়েছে চারটি জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার। তিনি ২০১০ সালের ভালোবাসলেই ঘর বাঁধা যায় না, ২০১২ সালের খোদার পরে মা, ২০১৫ সালের আরো ভালোবাসবো তোমায় এবং ২০১৭ সালের সত্তা চলচ্চিত্রের জন্য চারবার শ্রেষ্ঠ অভিনেতা বিভাগে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার লাভ করেন।

About admin

Check Also

৩ কিলোমিটার পায়ে হেঁটে টিউশনি করা মেয়েটাই আজ ম্যাজিস্ট্রেট

ক্লাস এইট পর্যন্ত কোনো শিক্ষকের কাছে প্রাইভেট পড়েননি শিল্পী মোদক। মা-ই ছিলেন তার শিক্ষক।হবিগঞ্জের রামকৃষ্ণ …

Leave a Reply

Your email address will not be published.