জীবনে সুখী হতে চাইলে বিয়ে করুন এসব মেয়েকে, জেনেনিন কেন !

প্রত্যেক নারীর মনোভাব বদলে গিয়েছে। আগের মতো আর নেই, যে খাবার সামনে পেলো আর ওটাই খেয়ে নিলো। কারণ এখন তারা শরীর সম্পর্কে অনেক সচেতন হয়ে গিয়েছে।এমনকি কোন খাবার কতটুকু খেলে ফিগার ঠিকঠাক থাকবে সেই অনুযায়ী খাবার খান নারীরা।সেই সঙ্গে নিয়মিত শরীরচর্চা।

শুধু তাই নয়, সেই সঙ্গে নারীরা এও চায় যে তার প্রেমিক বা স্বামীও যেন শরীর সচেতন হয়।তবে কোন ছেলেই বা শরীর নিয়ে সচেতন থাকে বলুন।কিন্তু অন্যদিকে নারীরা ফিগার ঠিকঠাক রাখতে আরো সুন্দরী হতে কত কিছুই না করে চলেছে।

এমনকি অনেক ছেলেই এখন বিয়ে করার জন্য ছিপছিপে ফিগারের মেয়ে খোঁজে।কারণ তারা ভাবে ওই ধরণের মেয়েদের বিয়ে করলে জীবনে সুখী হতে পারবে। তবে এটা ভুল ধারণা বলে দাবি করেছেন একটি গবেষণা।

ওই গবেষণার দাবি, চিকন মেয়েদের নয়, মোটা মেয়েদের বিয়ে করলে জীবনে সুখী হওয়া যায়।মোটা মেয়েরাই জীবনে সুখ ডেকে আনে।কারণ হিসেবে বলা যেতে পারে, মোটা মেয়েরা চিকন মেয়েদের তুলনায় অনেক গুন্ ভালো হয়।মোটা মেয়েরা শান্ত স্বভাবের হয়ে থাকে।এমনকি স্বামীদেরকেও খুব ভালোবাসেন। সেই সঙ্গে ইচ্ছেমতো নানারকম রান্না করেন।

প্রত্যেক নারীর মনোভাব বদলে গিয়েছে। আগের মতো আর নেই, যে খাবার সামনে পেলো আর ওটাই খেয়ে নিলো। কারণ এখন তারা শরীর সম্পর্কে অনেক সচেতন হয়ে গিয়েছে।এমনকি কোন খাবার কতটুকু খেলে ফিগার ঠিকঠাক থাকবে সেই অনুযায়ী খাবার খান নারীরা।সেই সঙ্গে নিয়মিত শরীরচর্চা।

শুধু তাই নয়, সেই সঙ্গে নারীরা এও চায় যে তার প্রেমিক বা স্বামীও যেন শরীর সচেতন হয়।তবে কোন ছেলেই বা শরীর নিয়ে সচেতন থাকে বলুন।কিন্তু অন্যদিকে নারীরা ফিগার ঠিকঠাক রাখতে আরো সুন্দরী হতে কত কিছুই না করে চলেছে।

এমনকি অনেক ছেলেই এখন বিয়ে করার জন্য ছিপছিপে ফিগারের মেয়ে খোঁজে।কারণ তারা ভাবে ওই ধরণের মেয়েদের বিয়ে করলে জীবনে সুখী হতে পারবে। তবে এটা ভুল ধারণা বলে দাবি করেছেন একটি গবেষণা।

ওই গবেষণার দাবি, চিকন মেয়েদের নয়, মোটা মেয়েদের বিয়ে করলে জীবনে সুখী হওয়া যায়।মোটা মেয়েরাই জীবনে সুখ ডেকে আনে।কারণ হিসেবে বলা যেতে পারে, মোটা মেয়েরা চিকন মেয়েদের তুলনায় অনেক গুন্ ভালো হয়।মোটা মেয়েরা শান্ত স্বভাবের হয়ে থাকে।এমনকি স্বামীদেরকেও খুব ভালোবাসেন। সেই সঙ্গে ইচ্ছেমতো নানারকম রান্না করেন।

প্রত্যেক নারীর মনোভাব বদলে গিয়েছে। আগের মতো আর নেই, যে খাবার সামনে পেলো আর ওটাই খেয়ে নিলো। কারণ এখন তারা শরীর সম্পর্কে অনেক সচেতন হয়ে গিয়েছে।এমনকি কোন খাবার কতটুকু খেলে ফিগার ঠিকঠাক থাকবে সেই অনুযায়ী খাবার খান নারীরা।সেই সঙ্গে নিয়মিত শরীরচর্চা।

শুধু তাই নয়, সেই সঙ্গে নারীরা এও চায় যে তার প্রেমিক বা স্বামীও যেন শরীর সচেতন হয়।তবে কোন ছেলেই বা শরীর নিয়ে সচেতন থাকে বলুন।কিন্তু অন্যদিকে নারীরা ফিগার ঠিকঠাক রাখতে আরো সুন্দরী হতে কত কিছুই না করে চলেছে।

এমনকি অনেক ছেলেই এখন বিয়ে করার জন্য ছিপছিপে ফিগারের মেয়ে খোঁজে।কারণ তারা ভাবে ওই ধরণের মেয়েদের বিয়ে করলে জীবনে সুখী হতে পারবে। তবে এটা ভুল ধারণা বলে দাবি করেছেন একটি গবেষণা।

ওই গবেষণার দাবি, চিকন মেয়েদের নয়, মোটা মেয়েদের বিয়ে করলে জীবনে সুখী হওয়া যায়।মোটা মেয়েরাই জীবনে সুখ ডেকে আনে।কারণ হিসেবে বলা যেতে পারে, মোটা মেয়েরা চিকন মেয়েদের তুলনায় অনেক গুন্ ভালো হয়।মোটা মেয়েরা শান্ত স্বভাবের হয়ে থাকে।এমনকি স্বামীদেরকেও খুব ভালোবাসেন। সেই সঙ্গে ইচ্ছেমতো নানারকম রান্না করেন।

About admin

Check Also

কম খরচে যেকেউ রাত কাটাতে পারবেন : কণ্ঠশিল্পী সালমা

বাংলাদেশের জনপ্রিয়ো কণ্ঠশিল্পী সালমা। নিজস্ব অর্থায়নে একটি রিসোর্ট তৈরি করেছেন কণ্ঠশিল্পী সালমা। বর্তমানে এই রিসোর্টের …

Leave a Reply

Your email address will not be published.