গ্রেফতারের পর পুলিশ এক নারীর সঙ্গে আমার ছবি তুলেছিল: রফিকুল মাদানী

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে করা মামলায় আলোচিত ‘শিশুবক্তা’ রফিকুল ইসলাম মাদানীর বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেছেন আদালত। বুধবার ঢাকার সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক আসসামছ জগলুল হোসেন অভিযোগপত্র পড়ে শোনান।

তবে আদালতে রফিকুল ইসলাম দোষ স্বীকার করেননি এবং তিনি ন্যায় বিচার দাবি করেছেন। আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর নজরুল ইসলাম শামীম এ তথ্য জানিয়ে বলেন, শুনানিতে রফিকুল ইসলাম আদালতে দাবি করেন যে তাকে গ্রেফতারের পর পুলিশ থানায় এক নারীর সঙ্গে বেশ কয়েকটি ছবি তুলেছিল।

এছাড়া আদালতে রফিকুল ইসলাম বলেন, তার বক্তৃতার ভুল ব্যাখ্যা করা হয়েছে। এছাড়া তার নামে মিথ্যা বক্তব্য প্রচার করা হয়েছে। এদিকে মামলার সাক্ষ্যগ্রহণের জন্য আগামী ২২ ফেব্রুয়ারি দিন ধার্য করেছেন আদালত।

উল্লেখ্য, গত বছরের ৭ এপ্রিল রফিকুল ইসলামকে নেত্রকোনার নিজ বাড়ি থেকে আটক করে র‌্যাব। পরদিন ৮ এপ্রিল রাষ্ট্রবিরোধী ও উসকানিমূলক বক্তব্য দেওয়ায় রফিকুল ইসলামের বিরুদ্ধে গাজীপুরের গাছা থানায় র‍্যাব বাদী হয়ে মামলা করে।

এরপর ১১ এপ্রিল রফিকুল ইসলামের বিরুদ্ধে মারাত্মক মিথ্যা, ভয়ভীতি দেখিয়ে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করে মানহানিকর তথ্য প্রকাশ এবং আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি অবনতি করার মতো অপরাধে সহায়তার অভিযোগে গাজীপুরের বাসন থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে আরও একটি মামলা করা হয়।

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে করা মামলায় আলোচিত ‘শিশুবক্তা’ রফিকুল ইসলাম মাদানীর বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেছেন আদালত। বুধবার ঢাকার সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক আসসামছ জগলুল হোসেন অভিযোগপত্র পড়ে শোনান।

তবে আদালতে রফিকুল ইসলাম দোষ স্বীকার করেননি এবং তিনি ন্যায় বিচার দাবি করেছেন। আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর নজরুল ইসলাম শামীম এ তথ্য জানিয়ে বলেন, শুনানিতে রফিকুল ইসলাম আদালতে দাবি করেন যে তাকে গ্রেফতারের পর পুলিশ থানায় এক নারীর সঙ্গে বেশ কয়েকটি ছবি তুলেছিল।

এছাড়া আদালতে রফিকুল ইসলাম বলেন, তার বক্তৃতার ভুল ব্যাখ্যা করা হয়েছে। এছাড়া তার নামে মিথ্যা বক্তব্য প্রচার করা হয়েছে। এদিকে মামলার সাক্ষ্যগ্রহণের জন্য আগামী ২২ ফেব্রুয়ারি দিন ধার্য করেছেন আদালত।

উল্লেখ্য, গত বছরের ৭ এপ্রিল রফিকুল ইসলামকে নেত্রকোনার নিজ বাড়ি থেকে আটক করে র‌্যাব। পরদিন ৮ এপ্রিল রাষ্ট্রবিরোধী ও উসকানিমূলক বক্তব্য দেওয়ায় রফিকুল ইসলামের বিরুদ্ধে গাজীপুরের গাছা থানায় র‍্যাব বাদী হয়ে মামলা করে।

এরপর ১১ এপ্রিল রফিকুল ইসলামের বিরুদ্ধে মারাত্মক মিথ্যা, ভয়ভীতি দেখিয়ে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করে মানহানিকর তথ্য প্রকাশ এবং আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি অবনতি করার মতো অপরাধে সহায়তার অভিযোগে গাজীপুরের বাসন থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে আরও একটি মামলা করা হয়।

About admin

Check Also

সেপ্টেম্বর থেকে দেশে আর কোনো লোডশেডিং থাকবে না: পরিকল্পনামন্ত্রী

আগামী সেপ্টেম্বর মাস থেকে দেশে আর কোনো লোডশেডিং থাকবে না বলে জানিয়েছেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ …

Leave a Reply

Your email address will not be published.