মারা গেলেন পবিত্র কাবার সাবেক ইমাম

মসজিদুল হারামের প্রবীণ শিক্ষক শায়খ ইয়াহইয়া বিন শায়খ বিন উসমান বিন আল হুসাইন ইন্তেকাল করেছেন। গত বুধবার ২৬ জানুয়ারি মক্কায় মারা যান। গত ৭০ বছর যাবত তিনি কাবা প্রাঙ্গণে হাদিসের পাঠদান করেন।

মৃত্যুকালে তার বয়স ছিল ৯০ বছর। গতকাল বৃহস্পতিবার ২৭ জানুয়ারি জোহর নামাজের পর মসজিদুল হারাম প্রাঙ্গণে তাঁর জানাজা সম্পন্ন হয়। এরপর শারায়ে নামক স্থানে তাকে দাফন করা হয়।

তাঁর মৃত্যুতে সৌদির শীর্ষ আলেমরা শোক জানান। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সবাই তাঁর জন্য দোয়া কামনা করেন। শায়খ ইয়াহইয়া মসজিদুল হারামের প্রবীণ শিক্ষক ছিলেন। দীর্ঘ অধ্যাপনার জীবনে তিনি পবিত্র মসজিদুল হারামে ইমাম হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেন।

শিক্ষার্থীদের হাদিসের পাঠদানের পাশাপাশি ইসলামী শিক্ষাচার ও নৈতিকাবোধ ধারণে উপস্থিত সব মুসল্লিদের তিনি উপদেশ দিতেন।মসজিদুল হারাম প্রাঙ্গণে সবার কাছে তিনি ‘শাইখুল মুদাররিসিন’ বা প্রধান শিক্ষক হিসেবে পরিচিত ছিলেন।

শায়খ ইয়াহইয়া ১৩৫৩ হিজরির ২৫ শাবান মক্কা নগরীতে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর বাবাসহ ওই সময়ের খ্যাতিমান মুহাদ্দিসদের কাছে তিনি পড়াশোনা করেন। ১৩৭৭-১৩৯০ হিজরিতে তিনি মক্কার দারুল হাদিস আল খাইরিয়াতে শিক্ষকতা শুরু করেন।

এরপর শায়খ আবদুল্লাহ হুমাইদের আহ্বানে মক্কার মাহাদুল হারামে শিক্ষকতা শুরু করেন। এরপর দীর্ঘ ৬৫ বছরের বেশি সময় তিনি হাদিসের পাঠদান করেন। দীর্ঘ অধ্যাপনার সময় শায়খ ইয়াহইয়া মসজিদুল হারামের প্রয়াত ইমাম শায়খ আবদুল জহির আবু সামাহ-এর সহকারি ইমাম হিসেবে কিছুদিন কাবা প্রাঙ্গণে ইমামতির দায়িত্ব পালন করেন।

মসজিদুল হারামের প্রবীণ শিক্ষক শায়খ ইয়াহইয়া বিন শায়খ বিন উসমান বিন আল হুসাইন ইন্তেকাল করেছেন। গত বুধবার ২৬ জানুয়ারি মক্কায় মারা যান। গত ৭০ বছর যাবত তিনি কাবা প্রাঙ্গণে হাদিসের পাঠদান করেন।

মৃত্যুকালে তার বয়স ছিল ৯০ বছর। গতকাল বৃহস্পতিবার ২৭ জানুয়ারি জোহর নামাজের পর মসজিদুল হারাম প্রাঙ্গণে তাঁর জানাজা সম্পন্ন হয়। এরপর শারায়ে নামক স্থানে তাকে দাফন করা হয়।

তাঁর মৃত্যুতে সৌদির শীর্ষ আলেমরা শোক জানান। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সবাই তাঁর জন্য দোয়া কামনা করেন। শায়খ ইয়াহইয়া মসজিদুল হারামের প্রবীণ শিক্ষক ছিলেন। দীর্ঘ অধ্যাপনার জীবনে তিনি পবিত্র মসজিদুল হারামে ইমাম হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেন।

শিক্ষার্থীদের হাদিসের পাঠদানের পাশাপাশি ইসলামী শিক্ষাচার ও নৈতিকাবোধ ধারণে উপস্থিত সব মুসল্লিদের তিনি উপদেশ দিতেন।মসজিদুল হারাম প্রাঙ্গণে সবার কাছে তিনি ‘শাইখুল মুদাররিসিন’ বা প্রধান শিক্ষক হিসেবে পরিচিত ছিলেন।

শায়খ ইয়াহইয়া ১৩৫৩ হিজরির ২৫ শাবান মক্কা নগরীতে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর বাবাসহ ওই সময়ের খ্যাতিমান মুহাদ্দিসদের কাছে তিনি পড়াশোনা করেন। ১৩৭৭-১৩৯০ হিজরিতে তিনি মক্কার দারুল হাদিস আল খাইরিয়াতে শিক্ষকতা শুরু করেন।

এরপর শায়খ আবদুল্লাহ হুমাইদের আহ্বানে মক্কার মাহাদুল হারামে শিক্ষকতা শুরু করেন। এরপর দীর্ঘ ৬৫ বছরের বেশি সময় তিনি হাদিসের পাঠদান করেন। দীর্ঘ অধ্যাপনার সময় শায়খ ইয়াহইয়া মসজিদুল হারামের প্রয়াত ইমাম শায়খ আবদুল জহির আবু সামাহ-এর সহকারি ইমাম হিসেবে কিছুদিন কাবা প্রাঙ্গণে ইমামতির দায়িত্ব পালন করেন।

About admin

Check Also

যে উপহার দিয়ে ‘বাবা’ সৃজিতকে মুগ্ধ করলেন আইরা

কলকাতার পরিচালক সৃজিত মুখোপাধ্যায় এবং বাংলাদেশি অভিনেত্রী রাফিয়াত রশীদ মিথিলা দম্পতির মেয়ে আইরা। মিথিলাকে বিয়ে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.