টাক মাথার পুরুষরাই নারীদের কাছে অধিক প্রিয়

রাস্তায় বের হলে ‘টাক, আজ’ই ঢেকে যাক’ বা ‘টাক নিয়ে ভাবনা, আর না, আর না’—এমন বিজ্ঞাপন চোখে পড়ে’নি এমন মানুষ পাওয়া যাবেন একজনও। এ ধরনের বিজ্ঞাপনের অব’সান হতে যাচ্ছে! সেইসঙ্গে টাক মাথার লোকেরাও এবার কিছুটা আন’ন্দিত হতেই পারেন।

সাম্প্রতিক এক গবেষণা জানাচ্ছে, টাক মাথার লোকেরা বেশি আক’র্ষণীয়, সফল ও সুপুরুষ। এক গবেষণার বরাত দিয়ে টাইম’স অব ইন্ডিয়ার সাম্প্রতিক প্রতিবেদনে টাক মাথার লোকেদের জন’প্রিয় হওয়ার বেশ’কিছু কারণ উঠে এসেছে।

চলুন কারণগুলো জেনে নেওয়া যাক, টে’কোরা বেশি আকর্ষণীয় : জেসন স্ট্যাথাম, জেফ বেজোস বা ব্রুস উই’লিসের মতো খ্যাতিমান ব্যক্তিদের মিল কোনটি, বলুন তো? তাঁরা সবাই নিজ নি’জ স্থানে সফল। স্ট্যাথাম ও উইলিস দুজনেই হলিউড সুপারস্টার,

অন্য’দিকে আমা’জনের প্রতি’ষ্ঠাতা বেজোস বিশ্বের অন্যতম শীর্ষ ধনী। তিন’জনের মধ্যে আরো এক’টি ব্যাপারে মিল রয়েছে। তাঁরা তিনজনই টাক মাথার অধি’কারী। সম্ভবত তাঁরা তিনজনই অনুভব করতে পেরেছেন যে চুলের স্বল্পতা কোনো”ভাবেই আকর্ষণহীনতা বা পৌরুষের সংকটের প্র’তীক নয়।

টেকোরা শক্তিশালী : ইউনি’ভার্সিটি অব পেনিসিল’ভানিয়া পরিচালিত এক গবেষণায় বলা হয়েছে, টাক মাথার লোকে’রা অন্যদের তুলনায় বেশি কর্তৃত্বশালী ও সফল। বিজ্ঞানী আল’বার্ট ই ম্যানস নিজেও টেকো। তিনি জনসাধারণকে টাক মাথার মানুষের সিরি’জ ছবি দেখানোর পর তাঁদের প্রতিক্রিয়া রেকর্ড করেন।

অংশগ্রহণ”কারীদের একজন মানুষের দুরকম ছবি দেখানো হয়। একটি ছবিতে মাথা’ভর্তি চুল ও অন্য’টিতে টেকো মাথা দেখানো হয়। অংশগ্রহণকারীদের সবাই টে’কো মাথার ছবিটির ব্যক্তিকে ‘বেশি প্রভাবশালী, বড় ও শক্তি”শালী’ দেখাচ্ছে বলে অভিহিত করেন।

টেকো মাথার লোক অধিক বুদ্ধিমান : ইউনি”ভার্সিটি অব সারল্যান্ডের মনোবিজ্ঞানী রোনাল্ড হেনস বিশ্ব’ব্যাপী বিশ হাজারেরও বেশি বিষয়ে গবেষণা করেন। তাঁর গবেষণার ফ’ল বলছে, টেকো মাথার লোকেরা বেশি বুদ্ধিমান ও জ্ঞানী হয়। হালকা টাক আকর্ষ’ণীয় নয় :

ইউনিভার্সিটি অব সারল্যান্ড পরিচালিত আরেক গবে’ষণার ফল বলছে, হালকা টাক মাথার লোকের চেয়ে পুরো টাক মাথার লোকে’দের বেশি আকর্ষণীয় বলে মত প্রকাশ করেছেন অংশগ্রহণকারীরা। টাকে হীন”মন্যতায় ভোগে পুরুষ : ‘আমি ২৩ বছর বয়সে চুল হারাতে শু’রু করি। প্রথম’দিকে আমি ভীষণ উদ্বিগ্ন ছিলাম।

বিভিন্ন জায়গা থেকে নেতিবাচক প্রতি’ক্রিয়া পাওয়ায় চুল ফিরে পেতে চিকিৎসা নেওয়া শুরু করি। কিন্তু এক’সময় আমি বুঝতে পারি, আমার চুল আর গজাবে না। তখন আমি ধীরে ধীরে টে’কো মাথার সঙ্গে মানিয়ে নিতে থাকি।

এটি তখনকার ঘটনা যখন জ্যাসন স্ট্যা”থাম বা ভিন ডাইসেল ধীরে ধীরে তুমুল জনপ্রিয়তা পাচ্ছেন। এটি আমা’কে স্বাচ্ছন্দ্য ও আত্মবিশ্বাসী করে তোলে,’ জানাচ্ছিলেন ভারতের সর’কারি চাকরিজীবী আশুমান দাস।টেকোকে অস্বস্তিতে ফেলবেন না :

প্রিয় মানুষ”টির চুল পড়ে গেলে বা টাক হলে তাঁকে অস্বস্তিতে ফেলার কোনো কা’রণ নেই। বরং তাঁকে বলতে পারেন, বিশ্বজুড়েই টাক মাথার লোকে’দের দেখা যায়, অন্যদের তুলনায় তাঁরা অধিক মেধাবীও বটে। টাক এখন সৌন্দ’র্যের বিষয়, সাফ’ল্যের প্রতীক, তাই নয় কি?

About admin

Check Also

মা হব, সন্তানকে আদর করব, দারুণ অনুভূতি: পরীমণি

ঢাকাই সিনেমার আলোচিত নায়িকা পরীমনি। সবশেষ মুক্তি প্রাপ্ত সিনেমা ‘গুণিন’। এ ছাড়া, সবশেষ অভিনয় করেছেন …

Leave a Reply

Your email address will not be published.