জায়েদ খানকে বয়কট করলো চলচ্চিত্রের ১৮ সংগঠন

অভিনেতা ও চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচনকে ঘিরে নাটক যেনো থামছেই না। তারই ধারাবাহিকতায় এবার সাবেক সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খানকে বয়কট করেছে চলচ্চিত্রের ১৮টি সংগঠন।

গতকাল বিকেলের বৈঠকেই এই সিদ্ধান্ত নেয় তারা গতকালের বৈঠকে জায়েদকে বয়কটের সিদ্ধান্ত নিলেও তখন খবরটি গোপন রাখা হয়। আজ উচ্চ আদালতের নির্দেশনা আসার আগ পর্যন্ত প্রকাশ না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন নেতারা।

বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন পরিচালক সমিতির সভাপতি সোহানুর রহমান সোহান, প্রযোজক সমিতির সাবেক সভাপতি খোরশেদ আলম খসরু, চিত্রগ্রাহক সমিতির সাবেক সভাপতি আসাদুজ্জামান মজনু এবং শিল্পী সমিতির আজীবন সদস্য অভিনেতা আলমগীর, নবনির্বাচিত সভাপতি ইলিয়াস কাঞ্চন,

অভিনেত্রী নিপুণ, সাইমন সাদিকসহ চলচ্চিত্রের অন্য সংগঠনগুলোর প্রতিনিধিরা। বিকেলে আদালতের নির্দেশনা আসার পর এফডিসিতে ফের বৈঠকে বসে ১৮ সংগঠনের নেতারা। তখনই আনুষ্ঠানিকভাবে গণমাধ্যমের কাছে জায়েদ খানকে বয়কটের কথা জানানো হয়।

এ প্রসঙ্গে চলচ্চিত্র প্রযোজক সমিতির সাবেক সভাপতি খোরশেদ আলম খসরু বলেন, ‘জায়েদ আমাদের কোনো সংগঠনকে মানেন না। সিনিয়রদেরকেও সমীহ করেন না। যেহেতু তিনি নিজের মেজাজ-মর্জি অনুসারে চলেন তাই সংগঠনগুলোরও তাকে আর দরকার নেই।

আমরা কেউই জায়েদের সঙ্গে কাজ করব না। যদি কোনো সংগঠনের কোনো সদস্য জায়েদের সঙ্গে কাজ করেন তাহলে সংশ্লিষ্ট সংগঠন সেই সদস্যের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে। দরকার পড়লে সদস্যপদও বাতিল করা হবে।’

অভিনেতা ও চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচনকে ঘিরে নাটক যেনো থামছেই না। তারই ধারাবাহিকতায় এবার সাবেক সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খানকে বয়কট করেছে চলচ্চিত্রের ১৮টি সংগঠন।

গতকাল বিকেলের বৈঠকেই এই সিদ্ধান্ত নেয় তারা গতকালের বৈঠকে জায়েদকে বয়কটের সিদ্ধান্ত নিলেও তখন খবরটি গোপন রাখা হয়। আজ উচ্চ আদালতের নির্দেশনা আসার আগ পর্যন্ত প্রকাশ না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন নেতারা।

বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন পরিচালক সমিতির সভাপতি সোহানুর রহমান সোহান, প্রযোজক সমিতির সাবেক সভাপতি খোরশেদ আলম খসরু, চিত্রগ্রাহক সমিতির সাবেক সভাপতি আসাদুজ্জামান মজনু এবং শিল্পী সমিতির আজীবন সদস্য অভিনেতা আলমগীর, নবনির্বাচিত সভাপতি ইলিয়াস কাঞ্চন,

অভিনেত্রী নিপুণ, সাইমন সাদিকসহ চলচ্চিত্রের অন্য সংগঠনগুলোর প্রতিনিধিরা। বিকেলে আদালতের নির্দেশনা আসার পর এফডিসিতে ফের বৈঠকে বসে ১৮ সংগঠনের নেতারা। তখনই আনুষ্ঠানিকভাবে গণমাধ্যমের কাছে জায়েদ খানকে বয়কটের কথা জানানো হয়।

এ প্রসঙ্গে চলচ্চিত্র প্রযোজক সমিতির সাবেক সভাপতি খোরশেদ আলম খসরু বলেন, ‘জায়েদ আমাদের কোনো সংগঠনকে মানেন না। সিনিয়রদেরকেও সমীহ করেন না। যেহেতু তিনি নিজের মেজাজ-মর্জি অনুসারে চলেন তাই সংগঠনগুলোরও তাকে আর দরকার নেই।

আমরা কেউই জায়েদের সঙ্গে কাজ করব না। যদি কোনো সংগঠনের কোনো সদস্য জায়েদের সঙ্গে কাজ করেন তাহলে সংশ্লিষ্ট সংগঠন সেই সদস্যের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে। দরকার পড়লে সদস্যপদও বাতিল করা হবে।’

About admin

Check Also

ভাইরাল এই ঝগড়ার ভিডিও দেখে হেসে থাকতে পারবেন না ১০০% গ্যারান্টি

না জানি কত কত অ-বাক করার মতন ঘটনার সাক্ষী আমাদের এই সোশ্যাল মিডিয়া । সোশ্যাল …

Leave a Reply

Your email address will not be published.