নৌকায় বুড়ো দাদু আর সুন্দরী তরুণীর অশ্লীল নাচের ভিডিও তুমুল ভাইরাল, (ভিডিও)

নৌকায় দেখা যায় এক বৃদ্ধ লোক এক তরুনীর সাথে ডান্স করছে, তার ডান্সের ভিডিওটি ইউটিউবে আপলোড দেওয়া মাত্র ভাইরাল হয়ে যায়।বুড়ো কাকুর ওই ভাইরাল হওয়ার ডান্সের ভিডিওটি আমরা আমাদের ওয়েবসাইটে শেয়ার করলাম, ভিডিওটি দেখে মজা পেলে আমাদের ওয়েবসাইট প্রতিনিয়ত ভিজিট করুন। ভিডিওটি উপভোগ করুন..

আরোও পড়ুন..’ফেসবুককে ছাড়িয়ে রেকর্ড গড়ল টিকটক অ্যাপ’, টিকটক অ্যাপ সবার কাছেই কমবেশি পরিচিত। টিকটক অ্যাপস টি নিয়ে বেশ জনপ্রিয় রয়েছে সমস্ত পৃথিবীতে।

এই অ্যাপটি ফেসবুক, হোয়াটসঅ্যাপের মতো জনপ্রিয় অ্যাপকে পেছনে ফেলে গতবছর বিশ্বজুড়ে সবচেয়ে বেশি বার ডাউনলোড হয়েছে। এই অ্যাপটি ব্যবহার করে বিশেষ করে তরুণ প্রজন্ম গুলো।সম্প্রতি ডিজিটাল অ্যানালিটিকস প্রতিষ্ঠান অ্যাপ অ্যানি বিশ্বজুড়ে অ্যাপ ডাউনলোডের যে তালিকাটি প্রকাশ করেছে সেখানে এই তথ্য উঠে এসেছে।

এই তালিকার শীর্ষ পাঁচে রয়েছে টিকটক, ফেসবুক, হোয়াটসঅ্যাপ, ইন্সটাগ্রাম ও ফেসবুক মেসেঞ্জার। এখানে টিকটক ছাড়া বাকি ৪টি অ্যাপই ফেসবুকের মালিকানাধীন।

কিন্তু ২০১৯ সালের তালিকায় এই শীর্ষ পাঁচে ছিল ফেসবুক মেসেঞ্জার, ফেসবুক, হোয়াটসঅ্যাপ, টিকটক ও ইন্সটাগ্রাম। করোনা মহামারি চলাকালীন সময়ে টিকটকের জনপ্রিয়তা বৃদ্ধি পায়

এবং অ্যাপটি সবচেয়ে বেশি ডাউনলোড হয়েছে ইউরোপ, দক্ষিণ আমেরিকা এবং যুক্তরাষ্ট্রে।বিবিসি বলছে, সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্রে টিকটক নিষিদ্ধ করার চেষ্টা করেছিলেন।

পশ্চিমা দেশগুলোতেও টিকটকসহ চীনা অ্যাপবিরোধী ব্যাপক প্রচারণা চলছে। তারপরও বিশ্বে টিকটকের জনপ্রিয়তা বেড়েই চলেছে। নিজ দেশ চীনেও শীর্ষে রয়েছে এই অ্যাপ। যেখানে টিকটক ডুয়োইন নামে পরিচিত।

নৌকায় দেখা যায় এক বৃদ্ধ লোক এক তরুনীর সাথে ডান্স করছে, তার ডান্সের ভিডিওটি ইউটিউবে আপলোড দেওয়া মাত্র ভাইরাল হয়ে যায়।বুড়ো কাকুর ওই ভাইরাল হওয়ার ডান্সের ভিডিওটি আমরা আমাদের ওয়েবসাইটে শেয়ার করলাম, ভিডিওটি দেখে মজা পেলে আমাদের ওয়েবসাইট প্রতিনিয়ত ভিজিট করুন। ভিডিওটি উপভোগ করুন..

আরোও পড়ুন..’ফেসবুককে ছাড়িয়ে রেকর্ড গড়ল টিকটক অ্যাপ’, টিকটক অ্যাপ সবার কাছেই কমবেশি পরিচিত। টিকটক অ্যাপস টি নিয়ে বেশ জনপ্রিয় রয়েছে সমস্ত পৃথিবীতে।

এই অ্যাপটি ফেসবুক, হোয়াটসঅ্যাপের মতো জনপ্রিয় অ্যাপকে পেছনে ফেলে গতবছর বিশ্বজুড়ে সবচেয়ে বেশি বার ডাউনলোড হয়েছে। এই অ্যাপটি ব্যবহার করে বিশেষ করে তরুণ প্রজন্ম গুলো।সম্প্রতি ডিজিটাল অ্যানালিটিকস প্রতিষ্ঠান অ্যাপ অ্যানি বিশ্বজুড়ে অ্যাপ ডাউনলোডের যে তালিকাটি প্রকাশ করেছে সেখানে এই তথ্য উঠে এসেছে।

এই তালিকার শীর্ষ পাঁচে রয়েছে টিকটক, ফেসবুক, হোয়াটসঅ্যাপ, ইন্সটাগ্রাম ও ফেসবুক মেসেঞ্জার। এখানে টিকটক ছাড়া বাকি ৪টি অ্যাপই ফেসবুকের মালিকানাধীন।

কিন্তু ২০১৯ সালের তালিকায় এই শীর্ষ পাঁচে ছিল ফেসবুক মেসেঞ্জার, ফেসবুক, হোয়াটসঅ্যাপ, টিকটক ও ইন্সটাগ্রাম। করোনা মহামারি চলাকালীন সময়ে টিকটকের জনপ্রিয়তা বৃদ্ধি পায়

এবং অ্যাপটি সবচেয়ে বেশি ডাউনলোড হয়েছে ইউরোপ, দক্ষিণ আমেরিকা এবং যুক্তরাষ্ট্রে।বিবিসি বলছে, সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্রে টিকটক নিষিদ্ধ করার চেষ্টা করেছিলেন।

পশ্চিমা দেশগুলোতেও টিকটকসহ চীনা অ্যাপবিরোধী ব্যাপক প্রচারণা চলছে। তারপরও বিশ্বে টিকটকের জনপ্রিয়তা বেড়েই চলেছে। নিজ দেশ চীনেও শীর্ষে রয়েছে এই অ্যাপ। যেখানে টিকটক ডুয়োইন নামে পরিচিত।

About admin

Check Also

বা’সর রা’তে সে এ’মন ভাবে ক’রবে আ’মি বি’শ্বাস ক’রতে পা’রছি না, ছিঃ…

বাসর রাত। সবার জীবনে এই রাতটি নাকি অনেক স্বপ্নের, অনেক আশার। ওসব ভাবনার নিকুচি করে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.