অফিস কর্মীর সাথে হাতেনাতে স্ত্রী কে ধরলেন স্বামী (ভিডিও)

আবাসিক ভবনের একটি ফ্ল্যাট থেকে এক নারী’সহ স্বামীকে আটক করেছেন তার স্ত্রী। শনিবার (১২ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে কিশোর_গঞ্জের ভৈরব শহরের কমলাপুর এলাকার একটি চারতলা ভবনের ওই ফ্ল্যা’ট থেকে তাদের আটক করা হয়।

তবে ফ্ল্যাটে থাকা নারী’কে নিজের স্ত্রী বলে দা”বি করেছেন ওই ব্যক্তি। ওই দুই ব্যক্তি হলেন-উপজেলা মাধ্য_মিক শিক্ষা অফিসের অফিস সহায়ক মোক’সেদ আলী ও একই অফি”সে

মাস্টারু_লে থাকা আয়া কল্পনা বেগম। উপজে’লা শিক্ষা অফিস ও স্থানীয় সূত্র জানায়, মোকসেদ আলীর সঙ্গে আরে’কে নারীর সঙ্গে পরকীয়া আছে বলে সন্দেহ করেন তার স্ত্রী শামসুন্নাহার।

আ”জ তিনি খবর পান তার স্বামী শহরের আবাসিক ভবনের একটি কক্ষে এক’টি নারীসহ অবস্থান করছেন। বিষয়টি জানতে পেরে দুপুরে ওই ফ্ল্যা_টে যান শামসুন্নাহার। তিনি সেখানে গিয়ে ওই নারীর সঙ্গে স্বামীর অবস্থানের বিষয়”টি নিশ্চিত হন।

তিনি কক্ষের বাইরে থেকে তালা মেরে দেন। পরে স্থানীয়_দের সহযোগিতায় তাদের আটক করা হয়। পরে আটককৃতদের উপজে’লার মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসে আনা হলে ঘটনা_স্থলে ছুটে আসেন ওই অফি’সের একাডেমিক সুপারভাইজার স্বপ্না বেগম। তার রুমে কর্মচারী কল্প’না বেগম ও শামসুন্নাহারসহ স্থানীয় লোকজন উপস্থিত হন। তি”নি মোকসেদ আলীর স্ত্রীর

অভি’যোগ শোনেন এবং তাকে সব ধরনের সহ_যোগিতার আশ্বাস দেন। এ বিষয়ে জানতে চাইলে অভিযুক্ত মোকসেদ আ’লী বলেন, স্ত্রীর যন্ত্রণায় বাধ্য হয়ে তিনি ওই নারী সঙ্গে পরকীয়া সম্পর্কে জড়ি’য়ে পড়েন। পরে তারা বিয়ে করেছেন। তবে কাবিন রেজিস্ট্রেশন হয়’নি বলে স্বী’কার করেন তিনি। অভিযুক্ত কল্পনা বেগম বলেন,

মোকসেদ আলীর সঙ্গে তার আগে পর’কীয়া সম্পর্ক ছিল না। শামসুন্নাহার সন্দেহ করা শুরু করলে তারা পরবর্তী সম্প’র্কে জড়িয়ে পড়েন। তিনমাস আগে তাদের বিয়ে হয়েছেও বলে তিনি দা’বি করেন। তবে মোক’সেদ আলীর স্ত্রী শামসুন্নাহারের ভাষ্যমতে, দীর্ঘ”দিন ধরে তারা পর’কীয়া করে যাচ্ছেন। এ নিয়ে আগেও তৎকালীন ইউএনও ও শিক্ষা কর্মক_র্তার সামনে কয়েকবার

সালিশ হয়েছে। তবে তখন তাকে কেউ পা’ত্তা দেননি। আজ হাতেনাতে এক রুম থেকে তাদের আটক করা হয়। তিন মে’য়ে ও নাবালক দুই ছেলেকে নিয়ে তিনি আর্থিক ও মান’সিক কষ্টে দিন কাটা’চ্ছেন। এ বিষয়ে উপ’জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আবু উবায়েদ আ’লী বলেন, ঘটনা_টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। কর্তৃপক্ষের দিক_নির্দেশনা অনুযায়ী তাদের বিরুদ্ধে বিধি মোতা’বেক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

অভি’যোগ শোনেন এবং তাকে সব ধরনের সহ_যোগিতার আশ্বাস দেন। এ বিষয়ে জানতে চাইলে অভিযুক্ত মোকসেদ আ’লী বলেন, স্ত্রীর যন্ত্রণায় বাধ্য হয়ে তিনি ওই নারী সঙ্গে পরকীয়া সম্পর্কে জড়ি’য়ে পড়েন। পরে তারা বিয়ে করেছেন। তবে কাবিন রেজিস্ট্রেশন হয়’নি বলে স্বী’কার করেন তিনি। অভিযুক্ত কল্পনা বেগম বলেন,

মোকসেদ আলীর সঙ্গে তার আগে পর’কীয়া সম্পর্ক ছিল না। শামসুন্নাহার সন্দেহ করা শুরু করলে তারা পরবর্তী সম্প’র্কে জড়িয়ে পড়েন। তিনমাস আগে তাদের বিয়ে হয়েছেও বলে তিনি দা’বি করেন। তবে মোক’সেদ আলীর স্ত্রী শামসুন্নাহারের ভাষ্যমতে, দীর্ঘ”দিন ধরে তারা পর’কীয়া করে যাচ্ছেন। এ নিয়ে আগেও তৎকালীন ইউএনও ও শিক্ষা কর্মক_র্তার সামনে কয়েকবার

সালিশ হয়েছে। তবে তখন তাকে কেউ পা’ত্তা দেননি। আজ হাতেনাতে এক রুম থেকে তাদের আটক করা হয়। তিন মে’য়ে ও নাবালক দুই ছেলেকে নিয়ে তিনি আর্থিক ও মান’সিক কষ্টে দিন কাটা’চ্ছেন। এ বিষয়ে উপ’জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আবু উবায়েদ আ’লী বলেন, ঘটনা_টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। কর্তৃপক্ষের দিক_নির্দেশনা অনুযায়ী তাদের বিরুদ্ধে বিধি মোতা’বেক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

About admin

Check Also

কম খরচে যেকেউ রাত কাটাতে পারবেন : কণ্ঠশিল্পী সালমা

বাংলাদেশের জনপ্রিয়ো কণ্ঠশিল্পী সালমা। নিজস্ব অর্থায়নে একটি রিসোর্ট তৈরি করেছেন কণ্ঠশিল্পী সালমা। বর্তমানে এই রিসোর্টের …

Leave a Reply

Your email address will not be published.