এমপি হতে চান জায়েদ খান

ঢাকাই সিনেমার আলোচিত চিত্রনায়ক জায়েদ খান। বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির টানা দুইবারের সাধারণ সম্পাদক তিনি। তৃতীয়বার জয় পেলেও এখনো চূড়ান্তভাবে চেয়ারে বসতে পারেননি তিনি। তার সাধারণ সম্পাদকের চেয়ারে বসার সিদ্ধান্ত এখন আদালত নেবে।

এদিকে সম্প্রতি জায়েদ খানের একটি মন্তব্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। তিনি এমপি তথা সংসদ সদস্য হওয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। তিনি বলেন, ভবিষ্যতে যদি আমার দলের নেত্রী কিংবা নীতিনির্ধারকরা দেশের কোথাও সংসদ সদস্য পদে নির্বাচনের সুযোগ দেন, তাহলে আমি কাজ করতে চাই।

ভিডিওতে জায়েদ খান বলেন, ছাত্রলীগের রাজনীতি করেছি আমি। সরকার আমাকে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সংস্কৃতি উপকমিটির সদস্য নির্বাচিত করেছে। রাজনীতি করতে খুব পছন্দ করি। মানুষের কল্যাণে কাজ করতে চাই। শিল্পীদের কল্যাণে কাজ করার ফলে অভিজ্ঞতা সঞ্চার হয়েছে।

তিনি বলেন, আমি উড়ে এসে জুড়ে বসা লোক না। অনুপ্রবেশকারীও নই। পারিবারিকভাবে আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সময় নজরুল ইসলাম বাবুর ভাইয়ের সঙ্গে রাজনীতি করেছি। রোটন ভাইয়ের সঙ্গে মিছিল-মিটিংয়ে অংশ নিয়েছি। বাবু ভাই এক দিন আমাকে সিনেমায় ট্রাই করার কথা বলেছিলেন। তার কথায় সিনেমায় এসেছি। নায়ক হয়েছি।

তিনি আরও বলেন, পকেট ভারি করার জন্য আমি রাজনীতি করতে চাই না। অসদুপায়ে টাকা আয়ের ইচ্ছা নেই। মানুষের কল্যাণে কাজ করতে পছন্দ করি।প্রসঙ্গত, ২০০৮ সালে ‘ভালোবাসা ভালোবাসা’ নামক সিনেমা দিয়ে চলচ্চিত্রে অভিষেক হয় জায়েদ খানের। সর্বশেষ ২০১৯ সালের ‘প্রতিশোধের আগুন’ সিনেমায় অভিনয় করেন তিনি।

ঢাকাই সিনেমার আলোচিত চিত্রনায়ক জায়েদ খান। বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির টানা দুইবারের সাধারণ সম্পাদক তিনি। তৃতীয়বার জয় পেলেও এখনো চূড়ান্তভাবে চেয়ারে বসতে পারেননি তিনি। তার সাধারণ সম্পাদকের চেয়ারে বসার সিদ্ধান্ত এখন আদালত নেবে।

এদিকে সম্প্রতি জায়েদ খানের একটি মন্তব্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। তিনি এমপি তথা সংসদ সদস্য হওয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। তিনি বলেন, ভবিষ্যতে যদি আমার দলের নেত্রী কিংবা নীতিনির্ধারকরা দেশের কোথাও সংসদ সদস্য পদে নির্বাচনের সুযোগ দেন, তাহলে আমি কাজ করতে চাই।

ভিডিওতে জায়েদ খান বলেন, ছাত্রলীগের রাজনীতি করেছি আমি। সরকার আমাকে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সংস্কৃতি উপকমিটির সদস্য নির্বাচিত করেছে। রাজনীতি করতে খুব পছন্দ করি। মানুষের কল্যাণে কাজ করতে চাই। শিল্পীদের কল্যাণে কাজ করার ফলে অভিজ্ঞতা সঞ্চার হয়েছে।

তিনি বলেন, আমি উড়ে এসে জুড়ে বসা লোক না। অনুপ্রবেশকারীও নই। পারিবারিকভাবে আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সময় নজরুল ইসলাম বাবুর ভাইয়ের সঙ্গে রাজনীতি করেছি। রোটন ভাইয়ের সঙ্গে মিছিল-মিটিংয়ে অংশ নিয়েছি। বাবু ভাই এক দিন আমাকে সিনেমায় ট্রাই করার কথা বলেছিলেন। তার কথায় সিনেমায় এসেছি। নায়ক হয়েছি।

তিনি আরও বলেন, পকেট ভারি করার জন্য আমি রাজনীতি করতে চাই না। অসদুপায়ে টাকা আয়ের ইচ্ছা নেই। মানুষের কল্যাণে কাজ করতে পছন্দ করি।প্রসঙ্গত, ২০০৮ সালে ‘ভালোবাসা ভালোবাসা’ নামক সিনেমা দিয়ে চলচ্চিত্রে অভিষেক হয় জায়েদ খানের। সর্বশেষ ২০১৯ সালের ‘প্রতিশোধের আগুন’ সিনেমায় অভিনয় করেন তিনি।

About admin

Check Also

বা’সর রা’তে সে এ’মন ভাবে ক’রবে আ’মি বি’শ্বাস ক’রতে পা’রছি না, ছিঃ…

বাসর রাত। সবার জীবনে এই রাতটি নাকি অনেক স্বপ্নের, অনেক আশার। ওসব ভাবনার নিকুচি করে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.