যৌনকর্মীরা না থাকলে সমাজের নারীরা এত নিরাপদে থাকতো না: মিথিলা

বাংলাদেশের জনপ্রিয় অভিনেত্রী রাফিয়াত রশিদ মিথিলা। কলকাতার নামী নির্মাতা সৃজিত মুখার্জির সঙ্গে বিয়ের পর সেখানেই থাকছেন তিনি। তবে দুই বাংলাতেই সমানতালে কাজ করছেন এই অভিনেত্রী। এরইমধ্যে কলকাতার আলোচিত ‘মন্টু পাইলট’ সিরিজের দ্বিতীয় সিজনে অভিনয় করেছেন মিথিলা। তার চরিত্রের নাম বহ্নি।

এই সাহসী সিরিজে কাজ প্রসঙ্গে মিথিলাবলেন, ‘গল্পটি শোনার পর এক মুহূর্তের জন্য কোনও দ্বিধা, জড়তা কাজ করেনি। এটা সমাজের এমন একটা অবহেলিত গোষ্ঠীর গল্প, যাদের প্রতি মুহূর্তে আমরা সমাজচ্যুত করার চেষ্টা করি। সমাজে প্রতিটি পেশার মানুষের মতো যৌনকর্মীদেরও অবদান আছে। ওরা (যৌনকর্মী) না থাকলে সমাজের নারীরা এত নিরাপদে থাকতে পারতেন না।’

তিনি আরও বলেন, ‘কেন যৌনকর্মীর জীবন সাধারণ মানুষ দেখবে না? কেন তাদের কষ্ট আমরা বুঝব না? কেন ওরা আমাদের পাশে জায়গা পাবে না? কেউ সেটা দেখাতে বা বলতে চাইলে কেন সেই বিষয়কে বিতর্কিত তকমা দেব!

সিরিজের বিষয়টি নিয়ে প্রশংসাসূচক আলোচনা হতেই পারে। সবার অভিনয় নিয়ে আলোচনাও হতে পারে। কিন্তু সমালোচনা কোনও মতেই নয়। এই সিরিজে যৌনপল্লির প্রকৃত চেহারা বা পরিবেশটাই দেখিয়েছেন দেবালয়। এখানে জৌলুসের কোনও জায়গা নেই।’

তিনি জানান, ‘শুরুতে বহ্নি বড় লোক বাবার আদুরে মেয়ে। ঘটনাচক্রে নীলকুঠিতে চলে আসে সে। এখানে এসে নিজেকে নতুন করে চিনতে পারে বহ্নি। নিজের জীবনের সমস্ত কঠিন সিদ্ধান্ত নিজেই নিতে শেখে। একটা সময়ের পরে মানবী বহ্নি যেন নারীশক্তিতে বলীয়ান হয়ে অতি মানবীতে পরিণত হয়।’

বাংলাদেশের জনপ্রিয় অভিনেত্রী রাফিয়াত রশিদ মিথিলা। কলকাতার নামী নির্মাতা সৃজিত মুখার্জির সঙ্গে বিয়ের পর সেখানেই থাকছেন তিনি। তবে দুই বাংলাতেই সমানতালে কাজ করছেন এই অভিনেত্রী। এরইমধ্যে কলকাতার আলোচিত ‘মন্টু পাইলট’ সিরিজের দ্বিতীয় সিজনে অভিনয় করেছেন মিথিলা। তার চরিত্রের নাম বহ্নি।

এই সাহসী সিরিজে কাজ প্রসঙ্গে মিথিলাবলেন, ‘গল্পটি শোনার পর এক মুহূর্তের জন্য কোনও দ্বিধা, জড়তা কাজ করেনি। এটা সমাজের এমন একটা অবহেলিত গোষ্ঠীর গল্প, যাদের প্রতি মুহূর্তে আমরা সমাজচ্যুত করার চেষ্টা করি। সমাজে প্রতিটি পেশার মানুষের মতো যৌনকর্মীদেরও অবদান আছে। ওরা (যৌনকর্মী) না থাকলে সমাজের নারীরা এত নিরাপদে থাকতে পারতেন না।’

তিনি আরও বলেন, ‘কেন যৌনকর্মীর জীবন সাধারণ মানুষ দেখবে না? কেন তাদের কষ্ট আমরা বুঝব না? কেন ওরা আমাদের পাশে জায়গা পাবে না? কেউ সেটা দেখাতে বা বলতে চাইলে কেন সেই বিষয়কে বিতর্কিত তকমা দেব!

সিরিজের বিষয়টি নিয়ে প্রশংসাসূচক আলোচনা হতেই পারে। সবার অভিনয় নিয়ে আলোচনাও হতে পারে। কিন্তু সমালোচনা কোনও মতেই নয়। এই সিরিজে যৌনপল্লির প্রকৃত চেহারা বা পরিবেশটাই দেখিয়েছেন দেবালয়। এখানে জৌলুসের কোনও জায়গা নেই।’

তিনি জানান, ‘শুরুতে বহ্নি বড় লোক বাবার আদুরে মেয়ে। ঘটনাচক্রে নীলকুঠিতে চলে আসে সে। এখানে এসে নিজেকে নতুন করে চিনতে পারে বহ্নি। নিজের জীবনের সমস্ত কঠিন সিদ্ধান্ত নিজেই নিতে শেখে। একটা সময়ের পরে মানবী বহ্নি যেন নারীশক্তিতে বলীয়ান হয়ে অতি মানবীতে পরিণত হয়।’

পর্দায় এমন সাহসী চরিত্রে অভিনয়ে তার স্বামী সৃজিত মুখার্জি নিষেধ করেছেন কিনা- এমন প্রশ্নের জবাবে মিথিলা বলেন, ‘আমার পেশাগত কোনও ব্যাপারে সৃজিত কখনও মাথা ঘামান না। মন্তব্যও করেন না। আমি কোন চরিত্রে, কোন পরিচালকের কী ছবিতে বা কোন দেশের ছবিতে বা সিরিজে অভিনয় করব, সেটা একান্তই আমার ব্যক্তিগত ব্যাপার।’

সূত্র: আনন্দবাজার।

About admin

Check Also

সব ভুলে আ’পন ঠি’কানায় ফি’রছেন চি’ত্রনায়িকা অপু বি’শ্বাস

চিত্রনায়ক শাকিব খানের সঙ্গে ছাড়াছাড়ির পর সিঙ্গেল আছেন ঢাকাই নায়িকা অপু বিশ্বাস। ছেলে আব্রাম খান …

Leave a Reply

Your email address will not be published.