কপালে টিপ পরে প্রতিবাদ জানালেন অভিনেতারাও

কপালে টিপ পরার কারণে রাজধানীর ফার্মগেট এলাকায় তেজগাঁও কলেজের এক নারী প্রভাষককে হেনস্তার শিকার হতে হয়। হেনস্তাকারীর ভূমিকায় ছিলেন পুলিশের এক সদস্য। এ ঘটনায় তীব্র সমালোচনা শুরু হয় সামাজিক মাধ্যমে।

শুধু নারীরা নয়, পুরুষরাও টিপ পরা ছবি পোস্ট করে এই ঘটনার প্রতিবাদ জানান। সাধারণ মানুষের পাশাপাশি শিল্পীরাও প্রতিবাদ মুখর হয়েছেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। কপালে টিপ পরে সেই ছবি ফেসবুকে পোস্ট করে প্রতিবাদ জানাচ্ছেন তারা।

নপ্রিয় অভিনেতা সাজু খাদেম কপালে টিপ পরা একটি ছবি পোস্ট করে লিখেন, লাল টিপ… লাল সূর্য…। এছাড়াও টিপ পরা ছবি পোস্ট করে প্রতিবাদ জানান অভিনেতা প্রাণ রায়, আনিসুর রহমান মিলন, মনোজ প্রামাণিক। চিত্রনায়ক সাইমন সাদিকও টিপ পরা ছবি পোস্ট করে প্রতিবাদ জানান।

প্রসঙ্গত, গতকাল রোববার (৩ এপ্রিল) সকালে রাজধানীর ফার্মগেট এলাকায় হেনস্তার শিকার হন তেঁজগাও কলেজের থিয়েটার অ্যান্ড মিডিয়া স্টাডিজ বিভাগের প্রভাষক ড. লতা সমাদ্দার। কপালে টিপ পরায় এক পুলিশ সদস্য তাকে উদ্দেশ করে কটূক্তি করেন। এ ঘটনার শেরেবাংলা নগর থানায় তিনি লিখিত অভিযোগ করেন।

লতা সমাদ্দার অভিযোগ করেন, রাজধানীর গ্রিন রোডের বাসা থেকে হেঁটে কলেজে যাওয়ার সময় পুলিশের পোশাক পরা এক ব্যক্তি ‘টিপ পরছোস কেন’ বলেই তাকে গালি দেন। প্রতিবাদ জানালে তার পায়ের ওপর দিয়ে বাইক চালিয়ে চলে যান অভিযুক্ত ব্যক্তি। এ ঘটনার খবর প্রকাশ হলেই শুরু হয় তীব্র প্রতিবাদ।

কপালে টিপ পরার কারণে রাজধানীর ফার্মগেট এলাকায় তেজগাঁও কলেজের এক নারী প্রভাষককে হেনস্তার শিকার হতে হয়। হেনস্তাকারীর ভূমিকায় ছিলেন পুলিশের এক সদস্য। এ ঘটনায় তীব্র সমালোচনা শুরু হয় সামাজিক মাধ্যমে।

শুধু নারীরা নয়, পুরুষরাও টিপ পরা ছবি পোস্ট করে এই ঘটনার প্রতিবাদ জানান। সাধারণ মানুষের পাশাপাশি শিল্পীরাও প্রতিবাদ মুখর হয়েছেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। কপালে টিপ পরে সেই ছবি ফেসবুকে পোস্ট করে প্রতিবাদ জানাচ্ছেন তারা।

নপ্রিয় অভিনেতা সাজু খাদেম কপালে টিপ পরা একটি ছবি পোস্ট করে লিখেন, লাল টিপ… লাল সূর্য…। এছাড়াও টিপ পরা ছবি পোস্ট করে প্রতিবাদ জানান অভিনেতা প্রাণ রায়, আনিসুর রহমান মিলন, মনোজ প্রামাণিক। চিত্রনায়ক সাইমন সাদিকও টিপ পরা ছবি পোস্ট করে প্রতিবাদ জানান।

প্রসঙ্গত, গতকাল রোববার (৩ এপ্রিল) সকালে রাজধানীর ফার্মগেট এলাকায় হেনস্তার শিকার হন তেঁজগাও কলেজের থিয়েটার অ্যান্ড মিডিয়া স্টাডিজ বিভাগের প্রভাষক ড. লতা সমাদ্দার। কপালে টিপ পরায় এক পুলিশ সদস্য তাকে উদ্দেশ করে কটূক্তি করেন। এ ঘটনার শেরেবাংলা নগর থানায় তিনি লিখিত অভিযোগ করেন।

লতা সমাদ্দার অভিযোগ করেন, রাজধানীর গ্রিন রোডের বাসা থেকে হেঁটে কলেজে যাওয়ার সময় পুলিশের পোশাক পরা এক ব্যক্তি ‘টিপ পরছোস কেন’ বলেই তাকে গালি দেন। প্রতিবাদ জানালে তার পায়ের ওপর দিয়ে বাইক চালিয়ে চলে যান অভিযুক্ত ব্যক্তি। এ ঘটনার খবর প্রকাশ হলেই শুরু হয় তীব্র প্রতিবাদ।

About admin

Check Also

প্রেমের টানে বরিশালে এসে মার খেলেন ভারতীয় যুবক

এবার প্রেমের টানে ভারতের দক্ষিণের রাজ্য তামিলনাড়ু থেকে বরিশালে এসে প্রেমিকার অপর প্রেমিকের কাছে মারধরের …

Leave a Reply

Your email address will not be published.