একসময় দল থেকে বাদ পড়া ছেলেটি বলছে, লক্ষ্য এখন বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হওয়া : তাসকিন

দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সফল ওয়ানডে সিরিজ শেষ করে দেশে ফিরেছেন ফাস্ট বোলার তাসকিন আহমেদ এবং শরিফুল ইসলাম। যদিও দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে প্রথম টেস্ট ম্যাচ খেলেছেন তাসকিন তবে ইনজুরির কারণে দ্বিতীয় টেস্ট ম্যাচের আগেই আজ দেশে ফিরেছেন তিনি।

বর্তমান সময়ে দারুন ছন্দে রয়েছে বাংলাদেশ দলের ফাস্ট বোলাররা। মোস্তাফিজুর রহমানের সাথে পাল্লা দিয়ে পারফরম্যান্স করছেন তাসকিন এবং শরিফুল। বিশেষ করে বাংলাদেশ ওয়ানডে দলের এই তিনজন এখনো হয়ে উঠেছেন ভরসার প্রতীক।

২০১৭ সালে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে তাসকিনের নামের পাশে উইকেট ছিল মাত্র ২টি। এবার ৩ ম্যাচে ৮ উইকেট আর শেষ ম্যাচে ৫ উইকেট নিয়ে হয়েছেন সিরিজসেরা। ইনজুরি আক্রান্ত হয়ে দেশে ফেরার আগে তাসকিন জানালেন নিজের নতুন লক্ষ্য।

দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে দেশে ফিরে আজ বিমানবন্দরে সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে তারা বলেন, “সবারই লক্ষ্য আমরা যাতে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হতে পারি। এই স্বপ্ন নিয়ে আমরা দলগতভাবে পরিশ্রম করি। দলের সবাই অনেক মেহনত করে এখন। সবার পেশাদারিত্বও এখন অন্যরকম”।

গত দুই বছর ধরে অনেক পরিশ্রম করে আসছেন তাসকিন। তবে শুধু পরিশ্রমী নয়, কোচিং স্টাফদের সমর্থন এবং বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক খালেদ মাহমুদ সুজন ফাস্ট বোলারদের সাহায্য করেছেন বলে জানিয়েছেন তাসকিন।

“তাছাড়া ফাস্ট বোলিং ইউনিটটা গত দুই বছর ধরে অনেক কষ্ট করছে। আমাদের কোচিং স্টাফের সবাই অনেক সমর্থন দেয়। সুজন স্যারও অনেক সাহায্য করে আমাদের মতো তরুণ পেসারদের। আমাদের ঐক্য যদি ঠিক থাকে, যদি উন্নতি চালিয়ে যেতে পারি এবং সবচেয়ে বড় কথা, সবাই যদি ফিট থাকি তাহলে ভালো কিছু একটা সম্ভব।”

দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সফল ওয়ানডে সিরিজ শেষ করে দেশে ফিরেছেন ফাস্ট বোলার তাসকিন আহমেদ এবং শরিফুল ইসলাম। যদিও দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে প্রথম টেস্ট ম্যাচ খেলেছেন তাসকিন তবে ইনজুরির কারণে দ্বিতীয় টেস্ট ম্যাচের আগেই আজ দেশে ফিরেছেন তিনি।

বর্তমান সময়ে দারুন ছন্দে রয়েছে বাংলাদেশ দলের ফাস্ট বোলাররা। মোস্তাফিজুর রহমানের সাথে পাল্লা দিয়ে পারফরম্যান্স করছেন তাসকিন এবং শরিফুল। বিশেষ করে বাংলাদেশ ওয়ানডে দলের এই তিনজন এখনো হয়ে উঠেছেন ভরসার প্রতীক।

২০১৭ সালে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে তাসকিনের নামের পাশে উইকেট ছিল মাত্র ২টি। এবার ৩ ম্যাচে ৮ উইকেট আর শেষ ম্যাচে ৫ উইকেট নিয়ে হয়েছেন সিরিজসেরা। ইনজুরি আক্রান্ত হয়ে দেশে ফেরার আগে তাসকিন জানালেন নিজের নতুন লক্ষ্য।

দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে দেশে ফিরে আজ বিমানবন্দরে সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে তারা বলেন, “সবারই লক্ষ্য আমরা যাতে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হতে পারি। এই স্বপ্ন নিয়ে আমরা দলগতভাবে পরিশ্রম করি। দলের সবাই অনেক মেহনত করে এখন। সবার পেশাদারিত্বও এখন অন্যরকম”।

গত দুই বছর ধরে অনেক পরিশ্রম করে আসছেন তাসকিন। তবে শুধু পরিশ্রমী নয়, কোচিং স্টাফদের সমর্থন এবং বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক খালেদ মাহমুদ সুজন ফাস্ট বোলারদের সাহায্য করেছেন বলে জানিয়েছেন তাসকিন।

“তাছাড়া ফাস্ট বোলিং ইউনিটটা গত দুই বছর ধরে অনেক কষ্ট করছে। আমাদের কোচিং স্টাফের সবাই অনেক সমর্থন দেয়। সুজন স্যারও অনেক সাহায্য করে আমাদের মতো তরুণ পেসারদের। আমাদের ঐক্য যদি ঠিক থাকে, যদি উন্নতি চালিয়ে যেতে পারি এবং সবচেয়ে বড় কথা, সবাই যদি ফিট থাকি তাহলে ভালো কিছু একটা সম্ভব।”

About admin

Check Also

বাংলাদেশের হারে ইমরুলের ‘মুচকি হাসি’, পরে বললেন ‘পেইজ হ্যাকড হয়েছিল’!

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজে অবিশ্বাস্য ব্যর্থতা। তবে সেই ভুলের গন্ডি থেকে বেড়িয়ে ওয়ানডে সিরিজে ঘুরে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.