ইসলাম ধর্ম মানেই শান্তি : চিত্রনায়ক বাপ্পী

ঢাকাই ছবির জনপ্রিয় চিত্রনায়ক বাপ্পী চৌধুরীর ব্যক্তিগত জীবনের গল্প অনেকেরই অজানা। কারণ অভিনয়ের বাইরে তিনি চলাফেরা করেন খুবই সঙ্গোপনে। শুধুমাত্র সামাজিক কার্যক্রমগুলোতে তার উপস্থিতিই চোখে পড়ে সবার।

এদিকে, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে চলমান ইস্যু নিয়ে এবার কথা বললেন তিনি। শুক্রবার (৮ এপ্রিল) তিনি ছবিসহ একটি পোস্ট দেন। পাঠকের জন্য তার লেখাটি প্রকাশ করা হলো।

চিত্রনায়ক বাপ্পী লেখেন, ‘ধর্মীয় কোনো ইস্যুতে আগ বাড়িয়ে নাক গলানো আমার কখনো ভালো লাগে না। তবে অশান্ত এই মনটাকে শান্ত করতে কিছু কথা না বলে পারছি না। ধর্ম ব্যক্তিগত ব্যাপার। জন্মসূত্রে পাওয়া নিজের ধর্মের প্রতি বিশ্বাস যেমন ব্যক্তিগত ব্যাপার,

পৃথিবীর প্রতিটি মানুষের ধর্মও ঠিক তেমনি তার ব্যক্তিগত ব্যাপার। বর্তমান সময়ে চলমান বেশ কয়েকটি ইস্যু বারবার আমার মনকে অশান্ত করে তুলছে। টিপকান্ড, বিজ্ঞান স্যারের কারাবাস, হিজাব পড়ায় শিক্ষিকা দ্বারা ছাত্রীদের নির্যাতন: এ সবের শেষ কোথায়? কিংবা শুরুটাই বা কিভাবে?’

তিনি আরও লেখেন, ‘অন্যের ধর্মের প্রতি এতোটাই ব্যক্তিগত আক্রোশ নিয়ে এরা বসবাস করছে কি করে? এমনও তো নয় যে এসব কোনো পড়ালেখা না জানা, শিক্ষার আলো থেকে দূরে থাকা কোনো কুসংস্কারাছন্ন অন্ধকার জগতের মানুষেরা করছে। আধুনিক এই যুগে, যখন সবাই নিজ কাজ করে সময় পায়না তখন তারা অন্যের ধর্ম নিয়ে ভাবার সময়ই বা পায় কখন?

ইসলাম মানেই শান্তি, সনাতন ধর্ম কখনও ঘৃণা শেখায়নি, বৌদ্ধ ধর্মেতো জীব হত্যাই মহাপাপ, আর যিশু নিজের জীবন বিলিয়ে দিয়েছেন শান্তি বাস্তবায়নে। তাহলে আমরা কেনো শান্ত থাকতে পারছি না? আমরা কেনো নিজের ধর্মের বার্তা শুনতে পাচ্ছি না? আমরা কেনো এত আক্রোশ নিয়ে বসে আছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘বাবা-মায়েদের কাছে অনুরোধ, সন্তানকে নিজেদের ধর্ম শেখানোর পাশাপাশি, অন্যের ধর্মের প্রতি সহনশীল হতে শেখান। ছোটবেলা থেকেই যদি ভালোবাসার বার্তা পৌঁছে দেন তবে ভবিষ্যৎ হবে সুন্দর। বাংলাদেশকে ধর্মের মাপকাঠিতে ভিন্ন হতে দেখতে চাই না। বাংলাদেশতো ভালোবাসার দেশ। মানুষগুলোর মন হোক ভালোবাসায় পরিপূর্ণ।’

চিত্রনায়ক বাপ্পী লেখেন, ‘ধর্মীয় কোনো ইস্যুতে আগ বাড়িয়ে নাক গলানো আমার কখনো ভালো লাগে না। তবে অশান্ত এই মনটাকে শান্ত করতে কিছু কথা না বলে পারছি না। ধর্ম ব্যক্তিগত ব্যাপার। জন্মসূত্রে পাওয়া নিজের ধর্মের প্রতি বিশ্বাস যেমন ব্যক্তিগত ব্যাপার,

পৃথিবীর প্রতিটি মানুষের ধর্মও ঠিক তেমনি তার ব্যক্তিগত ব্যাপার। বর্তমান সময়ে চলমান বেশ কয়েকটি ইস্যু বারবার আমার মনকে অশান্ত করে তুলছে। টিপকান্ড, বিজ্ঞান স্যারের কারাবাস, হিজাব পড়ায় শিক্ষিকা দ্বারা ছাত্রীদের নির্যাতন: এ সবের শেষ কোথায়? কিংবা শুরুটাই বা কিভাবে?’

তিনি আরও লেখেন, ‘অন্যের ধর্মের প্রতি এতোটাই ব্যক্তিগত আক্রোশ নিয়ে এরা বসবাস করছে কি করে? এমনও তো নয় যে এসব কোনো পড়ালেখা না জানা, শিক্ষার আলো থেকে দূরে থাকা কোনো কুসংস্কারাছন্ন অন্ধকার জগতের মানুষেরা করছে। আধুনিক এই যুগে, যখন সবাই নিজ কাজ করে সময় পায়না তখন তারা অন্যের ধর্ম নিয়ে ভাবার সময়ই বা পায় কখন?

ইসলাম মানেই শান্তি, সনাতন ধর্ম কখনও ঘৃণা শেখায়নি, বৌদ্ধ ধর্মেতো জীব হত্যাই মহাপাপ, আর যিশু নিজের জীবন বিলিয়ে দিয়েছেন শান্তি বাস্তবায়নে। তাহলে আমরা কেনো শান্ত থাকতে পারছি না? আমরা কেনো নিজের ধর্মের বার্তা শুনতে পাচ্ছি না? আমরা কেনো এত আক্রোশ নিয়ে বসে আছি।’

About admin

Check Also

প্রেমের টানে বরিশালে এসে মার খেলেন ভারতীয় যুবক

এবার প্রেমের টানে ভারতের দক্ষিণের রাজ্য তামিলনাড়ু থেকে বরিশালে এসে প্রেমিকার অপর প্রেমিকের কাছে মারধরের …

Leave a Reply

Your email address will not be published.