নিজের হাতে বিষধর সাপকে জল খাইয়ে দিচ্ছেন এক ব্যাক্তি, ভাইরাল ভিডিও

বি”ষধর আর বি”ষহীন সাপের মধ্যে অনেক কিছু পার্থক্য থাকে। সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রায়শই এরকম ভয়ঙ্কর সব বিশাল আকারের সাপের ভিডিও ভাইরাল হতে দেখা যায়।

তেমনি ভাইরাল হয়েছে আবারও একটি সাপের ভিডিও। ভিডিও শুরু হওয়া মাত্রই দেখা গেল সেই সাপকে উদ্ধার করতে পৌঁছে গেছেনবিখ্যাত সাপ রক্ষাকারী মির্জা মহাম্মদ আরিফ। আসলে এই ভিডিওতে দেখা গেছে একটি সাপ খুবই খারাপ ভাবে একটি নোটের মধ্যে আটকে গেছে,

আর যাকে বাঁচানোর জন্যই এসে গেছেন মির্জা মোহাম্মদ। এরপরেই দেখা যায় সেই বড় নেটের মধ্যে থেকে সাপটিকে উদ্ধার করতে লেগে যান সেই ব্যক্তি। দেখা যায় মির্জা মহাম্মদ একটি কাঁচি দিয়ে সেই নেটটাকে কাটতে শুরু করেন যাতে সেই সাপকে ওখান থেকে তাড়াতাড়ি বের করা যায়।

এতই খারাপ ভাবে নেটটার মধ্যে সেই সাপটা আটকে গিয়েছিল যাকে বের করতে অনেক হিমশিম খেতে হয়েছে মির্জা মহাম্মদকে। কিন্তু তাও চেষ্টা ছাড়েননি তিনি, শেষ পর্যন্ত সেই সাপকে বের করেই নিলেন ওখান থেকে।

বাইরে বের করে আনতেই সাপটার মুখের কাছে একটু জল দিলেন আর জল দিতেই সাপটাও সেই জল খেয়ে নিল। একটা অবলা প্রাণী জীবন আজ বাঁচিয়ে দিলেন মির্জা মোহাম্মদ আরিফ। দেখা যায় অনেকক্ষণ ধরেই জল খাওয়ানো হয় সেই সাপকে।

বাইরে তো বের করে আনা হয়েছিল সেই সাপকে কিন্তু তাও সেই সাপটা নেটের মধ্যে এমন ভাবে আটকে গেছিল, যে তখনও দেখা যায় সাপটার গায়ে নেটটা পুরো জড়িয়ে রয়েছে। আর মির্জা মোহাম্মদ সেই নেটকে আবার কাঁচি দিয়ে কেটে সাপটাকে ছাড়ানোর চেষ্টা করে।

সাপটার গায়ে জড়িয়ে থাকা নেটটা কেটে দিতেই আস্তে আস্তে সাপটা বাইরে বেরিয়ে আসতে পারে। এইসব হচ্ছে মনোকোল কোবরা সাপ। যাকে আবার চন্দ্রনাগও বলা হয়। গোটা সাতদিন ধরে এই নেটটার মধ্যে আটকে পড়েছিল সাপটা।

এরপর সাপটাকে একটি কাপড়ের ব্যাগে পুড়ে নেওয়া হয় আর তার নির্দিষ্ট স্থানে তাকে নিয়ে গিয়ে ছেড়ে দেবে মির্জা মোহাম্মদ। ভিডিওটি ইউটিউব থেকে ভাইরাল হওয়া মাত্রই দেখে নিয়েছেন ২.৩ লাখ মানুষ এবং লাইক করেছেন ১৬ হাজার মানুষে। অসংখ্য মানুষের কমেন্ট করে বাহবা জানিয়েছেন মির্জা মোহাম্মদ আরিফের এমন অসাধারণ কাজকে।

আর যাকে বাঁচানোর জন্যই এসে গেছেন মির্জা মোহাম্মদ। এরপরেই দেখা যায় সেই বড় নেটের মধ্যে থেকে সাপটিকে উদ্ধার করতে লেগে যান সেই ব্যক্তি। দেখা যায় মির্জা মহাম্মদ একটি কাঁচি দিয়ে সেই নেটটাকে কাটতে শুরু করেন যাতে সেই সাপকে ওখান থেকে তাড়াতাড়ি বের করা যায়।

এতই খারাপ ভাবে নেটটার মধ্যে সেই সাপটা আটকে গিয়েছিল যাকে বের করতে অনেক হিমশিম খেতে হয়েছে মির্জা মহাম্মদকে। কিন্তু তাও চেষ্টা ছাড়েননি তিনি, শেষ পর্যন্ত সেই সাপকে বের করেই নিলেন ওখান থেকে।

বাইরে বের করে আনতেই সাপটার মুখের কাছে একটু জল দিলেন আর জল দিতেই সাপটাও সেই জল খেয়ে নিল। একটা অবলা প্রাণী জীবন আজ বাঁচিয়ে দিলেন মির্জা মোহাম্মদ আরিফ। দেখা যায় অনেকক্ষণ ধরেই জল খাওয়ানো হয় সেই সাপকে।

বাইরে তো বের করে আনা হয়েছিল সেই সাপকে কিন্তু তাও সেই সাপটা নেটের মধ্যে এমন ভাবে আটকে গেছিল, যে তখনও দেখা যায় সাপটার গায়ে নেটটা পুরো জড়িয়ে রয়েছে। আর মির্জা মোহাম্মদ সেই নেটকে আবার কাঁচি দিয়ে কেটে সাপটাকে ছাড়ানোর চেষ্টা করে।

About admin

Check Also

কম খরচে যেকেউ রাত কাটাতে পারবেন : কণ্ঠশিল্পী সালমা

বাংলাদেশের জনপ্রিয়ো কণ্ঠশিল্পী সালমা। নিজস্ব অর্থায়নে একটি রিসোর্ট তৈরি করেছেন কণ্ঠশিল্পী সালমা। বর্তমানে এই রিসোর্টের …

Leave a Reply

Your email address will not be published.