বুলেট ছোড়ার নির্দেশদাতা এডিসি হারুনের প্রত্যাহার চায় শিক্ষার্থীরা

গতকাল সোমবার ১৮ এপ্রিল রাজধানীর নিউ মার্কেট এলাকায় ঢাকা কলেজের ছাত্রদের লক্ষ্য করে পুলিশের রাবার বুলেট ছোড়ার নির্দেশদাতা উল্লেখ করে পুলিশের রমনা জোনের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (এডিসি) হারুন অর রশিদের প্রত্যাহার দাবি করেছেন শিক্ষার্থীরা।

আজ মঙ্গলবার ১৯ এপ্রিল সকাল থেকে শিক্ষার্থীদের ওপর পুলিশের গুলির প্রতিবাদে রাজধানীর নীলক্ষেত ও সাইন্সল্যাব এলাকায় জড়ো হন ঢাকা কলেজসহ সরকারি সাত কলেজের শিক্ষার্থীরা। এছাড়া ঢাকা কলেজের সামনের মিরপুর রোডের নায়েমের গলির সামনে জড়ো হয় বেশ কিছু শিক্ষার্থী।

এ সময় শিক্ষার্থীরা বলেন, এডিসি হারুন অর রশিদ শিক্ষার্থীদের ওপর গুলি চালানোর নির্দেশ দিয়ে পুলিশ বাহিনীর সুনাম নষ্ট করছেন। তিনি নিউ মার্কেটের ব্যবসায়ীদের খুশি করতেই এমনটি করেছেন। তাকে প্রত্যাহার না করা পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাবে শিক্ষার্থীরা

নীলক্ষেতে অবস্থানরত সাত কলেজের শিক্ষার্থী জুবায়ের হোসেন বলেন, আমার ভাইদের ওপর চালানো প্রতিটা বুলেটের জবাব ঠিকভাবে দেবে সাত কলেজ পরিবার। দ্রুত সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি। আমরা হামলাকারী পুলিশের প্রত্যাহার চাই।

এর আগে মঙ্গলবার রাত ১২টার দিকে নিউমার্কেট এলাকায় ‘কথা-কাটাকাটির জেরে’ ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীদের সঙ্গে ব্যবসায়ীদের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ টিয়ার শেল ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে। এ ঘটনায় দুই শিক্ষার্থী ও দুই ব্যবসায়ী আহত হন। আহত হন বেশ কয়েকজন পুলিশ সদস্যও।

এদিকে মধ্যরাতে সংঘর্ষের পর ঢাকা কলেজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে ঘোষণা দেওয়া হয়, ‘অনিবার্য কারণে ১৯ এপ্রিল, মঙ্গলবার ঢাকা কলেজের উচ্চমাধ্যমিক ও অনার্স-মাস্টার্স শ্রেণির সকল ক্লাস ও পরীক্ষাসমূহ স্থগিত করা হলো। সকল শিক্ষককে সকাল ১০টার মধ্যে কলেজে উপস্থিত থাকার জন্য অনুরোধ করা হলো।’

গতকাল সোমবার ১৮ এপ্রিল রাজধানীর নিউ মার্কেট এলাকায় ঢাকা কলেজের ছাত্রদের লক্ষ্য করে পুলিশের রাবার বুলেট ছোড়ার নির্দেশদাতা উল্লেখ করে পুলিশের রমনা জোনের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (এডিসি) হারুন অর রশিদের প্রত্যাহার দাবি করেছেন শিক্ষার্থীরা।

আজ মঙ্গলবার ১৯ এপ্রিল সকাল থেকে শিক্ষার্থীদের ওপর পুলিশের গুলির প্রতিবাদে রাজধানীর নীলক্ষেত ও সাইন্সল্যাব এলাকায় জড়ো হন ঢাকা কলেজসহ সরকারি সাত কলেজের শিক্ষার্থীরা। এছাড়া ঢাকা কলেজের সামনের মিরপুর রোডের নায়েমের গলির সামনে জড়ো হয় বেশ কিছু শিক্ষার্থী।

এ সময় শিক্ষার্থীরা বলেন, এডিসি হারুন অর রশিদ শিক্ষার্থীদের ওপর গুলি চালানোর নির্দেশ দিয়ে পুলিশ বাহিনীর সুনাম নষ্ট করছেন। তিনি নিউ মার্কেটের ব্যবসায়ীদের খুশি করতেই এমনটি করেছেন। তাকে প্রত্যাহার না করা পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাবে শিক্ষার্থীরা

নীলক্ষেতে অবস্থানরত সাত কলেজের শিক্ষার্থী জুবায়ের হোসেন বলেন, আমার ভাইদের ওপর চালানো প্রতিটা বুলেটের জবাব ঠিকভাবে দেবে সাত কলেজ পরিবার। দ্রুত সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি। আমরা হামলাকারী পুলিশের প্রত্যাহার চাই।

এর আগে মঙ্গলবার রাত ১২টার দিকে নিউমার্কেট এলাকায় ‘কথা-কাটাকাটির জেরে’ ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীদের সঙ্গে ব্যবসায়ীদের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ টিয়ার শেল ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে। এ ঘটনায় দুই শিক্ষার্থী ও দুই ব্যবসায়ী আহত হন। আহত হন বেশ কয়েকজন পুলিশ সদস্যও।

এদিকে মধ্যরাতে সংঘর্ষের পর ঢাকা কলেজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে ঘোষণা দেওয়া হয়, ‘অনিবার্য কারণে ১৯ এপ্রিল, মঙ্গলবার ঢাকা কলেজের উচ্চমাধ্যমিক ও অনার্স-মাস্টার্স শ্রেণির সকল ক্লাস ও পরীক্ষাসমূহ স্থগিত করা হলো। সকল শিক্ষককে সকাল ১০টার মধ্যে কলেজে উপস্থিত থাকার জন্য অনুরোধ করা হলো।’

About admin

Check Also

লুঙ্গি ধরে টান দেয়ায় শ্যালিকাকে মেরে ঝুলিয়ে রাখে নতুন দুলাভাই

এবার কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরীর রাখানায় খুশি হত্যা ঘটনায় নতুন বর (জেঠাতো বোনের স্বামী) আব্দুল গনিকে গ্রেপ্তার …

Leave a Reply

Your email address will not be published.