নামাজ পড়ছিলেন মা, দৌড়ে এসে কুপিয়ে মাথা আলাদা করে দিল ছেলে

ময়মনসিংহে নামাজ আদায়ের সময় মাকে দা দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করেছেন ছেলে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত জাকির হোসেনকে আটক করেছে পুলিশ। তবে ছেলেটি ভারসাম্যহীন ছিলেন বলে জানিয়েছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে সদর উপজেলার মধ্য বারেরা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহতের নাম মোমেনা বেগম। ৬৫ বছর বয়সী মোমেনা একই গ্রামের আবুল বাশারের স্ত্রী।

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি (তদন্ত) ফারুক হোসেন বলেন, এশার নামাজ পড়ছিলেন মোমেনা। এ সময় বাড়িতে এসে মাকে ডাকাডাকি করতে থাকেন জাকির। নামাজ পড়ার কারণে তার মা সাড়া দিতে পারেননি।

এতে ক্ষিপ্ত হয়ে দৌড়ে ঘরে গিয়ে নামাজরত অবস্থায় তার মায়ের ঘাড়ে দা দিয়ে কোপ দেন। এতে মোমেনার মাথা শরীর থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে ঘটনাস্থলেই মারা যান।পরে স্থানীয়রা থানায় খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। এছাড়া ছেলে জাকির হোসেনকে আটক করা হয়। এ ঘটনায় আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানান ওসি (তদন্ত) ফারুক হোসেন।

ময়মনসিংহে নামাজ আদায়ের সময় মাকে দা দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করেছেন ছেলে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত জাকির হোসেনকে আটক করেছে পুলিশ। তবে ছেলেটি ভারসাম্যহীন ছিলেন বলে জানিয়েছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে সদর উপজেলার মধ্য বারেরা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহতের নাম মোমেনা বেগম। ৬৫ বছর বয়সী মোমেনা একই গ্রামের আবুল বাশারের স্ত্রী।

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি (তদন্ত) ফারুক হোসেন বলেন, এশার নামাজ পড়ছিলেন মোমেনা। এ সময় বাড়িতে এসে মাকে ডাকাডাকি করতে থাকেন জাকির। নামাজ পড়ার কারণে তার মা সাড়া দিতে পারেননি।

এতে ক্ষিপ্ত হয়ে দৌড়ে ঘরে গিয়ে নামাজরত অবস্থায় তার মায়ের ঘাড়ে দা দিয়ে কোপ দেন। এতে মোমেনার মাথা শরীর থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে ঘটনাস্থলেই মারা যান।পরে স্থানীয়রা থানায় খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। এছাড়া ছেলে জাকির হোসেনকে আটক করা হয়। এ ঘটনায় আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানান ওসি (তদন্ত) ফারুক হোসেন।

ময়মনসিংহে নামাজ আদায়ের সময় মাকে দা দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করেছেন ছেলে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত জাকির হোসেনকে আটক করেছে পুলিশ। তবে ছেলেটি ভারসাম্যহীন ছিলেন বলে জানিয়েছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে সদর উপজেলার মধ্য বারেরা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহতের নাম মোমেনা বেগম। ৬৫ বছর বয়সী মোমেনা একই গ্রামের আবুল বাশারের স্ত্রী।

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি (তদন্ত) ফারুক হোসেন বলেন, এশার নামাজ পড়ছিলেন মোমেনা। এ সময় বাড়িতে এসে মাকে ডাকাডাকি করতে থাকেন জাকির। নামাজ পড়ার কারণে তার মা সাড়া দিতে পারেননি।

এতে ক্ষিপ্ত হয়ে দৌড়ে ঘরে গিয়ে নামাজরত অবস্থায় তার মায়ের ঘাড়ে দা দিয়ে কোপ দেন। এতে মোমেনার মাথা শরীর থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে ঘটনাস্থলেই মারা যান।পরে স্থানীয়রা থানায় খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। এছাড়া ছেলে জাকির হোসেনকে আটক করা হয়। এ ঘটনায় আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানান ওসি (তদন্ত) ফারুক হোসেন।

About admin

Check Also

স্যার আমি আস্তে করি, চেষ্টা করি যেন বেশি ব্যথা না পায়

ক্লাস রুটিন আর পরীক্ষার রুটিনের বাইরে ভিন্ন রকম এক রুটিন চালু করেছে রাঙ্গুনিয়ার এক কওমি …

Leave a Reply

Your email address will not be published.