কোপা জেতার পর সবকিছু বদলে গেছে: ডি মারিয়া

ম্যাচের প্রথমার্ধের শেষ দিকে বল নিয়ে সোজা ওপরে উঠে যান মার্টিনেজ, তাকে সহায়তা করতে ডান দিক দিয়ে ওপরে ওঠেন ডি মারিয়াও। ডি-বক্সের কাছে গিয়ে দুই ডিফেন্ডারকে ফাঁকি দিয়ে ডি মারিয়ার উদ্দেশ্যে বল এগিয়ে দেন মার্টিনেজ।

সেই বল থেকে আলতো চিপ করে ডনারুম্মার মাথার ওপর দিয়ে বল জালে জড়ান ডি মারিয়া। এর আগে মার্টিনেজ নিজেই করেছিলেন ম্যাচের প্রথম গোল। আর শেষ বাঁশি বাজার আগমুহুর্তে ইতালির কফিনে শেষ পেরেক ঠুকে দেন বদলি হিসেবে নামা পাওলো দিবালা।

দারুণ এ জয়ের পর ডি মারিয়া জানিয়েছেন, গতবছর কোপা আমেরিকা জেতার পর থেকেই আর্জেন্টিনা দলের সবকিছু বদলে গিয়েছে। দলের সবাই মিলে এখন উপভোগ্য সময় কাটান। যা মাঠের পারফরম্যান্সেও ইতিবাচক প্রভাব ফেলে।

১৯৯৩ সালের কোপা আমেরিকা চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পর দীর্ঘ ২৮ বছর কোনো শিরোপার মুখ দেখেনি আর্জেন্টিনা। গত বছর ব্রাজিলের মাটিতে হওয়া কোপা জিতে সেই শিরোপাখরা কাটিয়ে ওঠে আলবিসেলেস্তেরা। ফাইনালে জয়সূচক একমাত্র গোলটি করেছিলেন অ্যাঞ্জেলো ডি মারিয়া।

দীর্ঘ শিরোপাখরা কাটানোর এক বছরের মাথায় আবারও চ্যাম্পিয়ন হলো আর্জেন্টিনা। এবার ইউরো চ্যাম্পিয়ন ইতালির বিপক্ষে আন্তঃমহাদেশীয় শ্রেষ্ঠত্বের লড়াই ফাইনালিসিমায় আর্জেন্টিনা জিতলো ৩-০ গোলের ব্যবধানে। এ ম্যাচেও স্কোরশিটে নাম তুলেছেন ডি মারিয়া।

ফাইনালিসিমা জয়ের মেডেল গ্রহণের পর ডি মারিয়া বলেছেন, ‘গতবছরের কোপা আমেরিকার পর সবকিছু বদলে গিয়েছে। আমরা সেই (শিরোপা না জেতার) জড়তা কাটিয়ে উঠেছি এবং এখন নিজেদের উপভোগ করছি। বিষয়গুলো এখন আমাদের জন্য সহজ হয়ে গেছে।’

ইতালিকে হারিয়ে জেতা এ শিরোপাটি পরিবারের সদস্যের উৎসর্গ করে তিনি আরও বলেন, ‘এই শিরোপা জয়ে আমি অনেক খুশি। আমি এটি আমাদের সবার পরিবারকে উৎসর্গ করতে চাই, যারা সবসময় আমাদের সমর্থন দিয়ে গেছে এবং যারা আজকে মাঠে উপস্থিত ছিলো। এটি অবিশ্বাস্য।’

তবে দুই বছরের মধ্যে দুই শিরোপা জিতলেও ঠিক উড়তে রাজি নন ডি মারিয়া। বরং তিনি যেনো আসন্ন বিশ্বকাপের জন্য পা মাটিতেই রাখতে চাইছেন, ‘আমরা রোমাঞ্চিত, আনন্দিত। তবে আমাদের অবশ্যই নিজেদের পা মাটিতে রাখতে হবে।’

১৯৯৩ সালের কোপা আমেরিকা চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পর দীর্ঘ ২৮ বছর কোনো শিরোপার মুখ দেখেনি আর্জেন্টিনা। গত বছর ব্রাজিলের মাটিতে হওয়া কোপা জিতে সেই শিরোপাখরা কাটিয়ে ওঠে আলবিসেলেস্তেরা। ফাইনালে জয়সূচক একমাত্র গোলটি করেছিলেন অ্যাঞ্জেলো ডি মারিয়া।

দীর্ঘ শিরোপাখরা কাটানোর এক বছরের মাথায় আবারও চ্যাম্পিয়ন হলো আর্জেন্টিনা। এবার ইউরো চ্যাম্পিয়ন ইতালির বিপক্ষে আন্তঃমহাদেশীয় শ্রেষ্ঠত্বের লড়াই ফাইনালিসিমায় আর্জেন্টিনা জিতলো ৩-০ গোলের ব্যবধানে। এ ম্যাচেও স্কোরশিটে নাম তুলেছেন ডি মারিয়া।

ম্যাচের প্রথমার্ধের শেষ দিকে বল নিয়ে সোজা ওপরে উঠে যান মার্টিনেজ, তাকে সহায়তা করতে ডান দিক দিয়ে ওপরে ওঠেন ডি মারিয়াও। ডি-বক্সের কাছে গিয়ে দুই ডিফেন্ডারকে ফাঁকি দিয়ে ডি মারিয়ার উদ্দেশ্যে বল এগিয়ে দেন মার্টিনেজ।

সেই বল থেকে আলতো চিপ করে ডনারুম্মার মাথার ওপর দিয়ে বল জালে জড়ান ডি মারিয়া। এর আগে মার্টিনেজ নিজেই করেছিলেন ম্যাচের প্রথম গোল। আর শেষ বাঁশি বাজার আগমুহুর্তে ইতালির কফিনে শেষ পেরেক ঠুকে দেন বদলি হিসেবে নামা পাওলো দিবালা।

দারুণ এ জয়ের পর ডি মারিয়া জানিয়েছেন, গতবছর কোপা আমেরিকা জেতার পর থেকেই আর্জেন্টিনা দলের সবকিছু বদলে গিয়েছে। দলের সবাই মিলে এখন উপভোগ্য সময় কাটান। যা মাঠের পারফরম্যান্সেও ইতিবাচক প্রভাব ফেলে।

ফাইনালিসিমা জয়ের মেডেল গ্রহণের পর ডি মারিয়া বলেছেন, ‘গতবছরের কোপা আমেরিকার পর সবকিছু বদলে গিয়েছে। আমরা সেই (শিরোপা না জেতার) জড়তা কাটিয়ে উঠেছি এবং এখন নিজেদের উপভোগ করছি। বিষয়গুলো এখন আমাদের জন্য সহজ হয়ে গেছে।’

ইতালিকে হারিয়ে জেতা এ শিরোপাটি পরিবারের সদস্যের উৎসর্গ করে তিনি আরও বলেন, ‘এই শিরোপা জয়ে আমি অনেক খুশি। আমি এটি আমাদের সবার পরিবারকে উৎসর্গ করতে চাই, যারা সবসময় আমাদের সমর্থন দিয়ে গেছে এবং যারা আজকে মাঠে উপস্থিত ছিলো। এটি অবিশ্বাস্য।’

তবে দুই বছরের মধ্যে দুই শিরোপা জিতলেও ঠিক উড়তে রাজি নন ডি মারিয়া। বরং তিনি যেনো আসন্ন বিশ্বকাপের জন্য পা মাটিতেই রাখতে চাইছেন, ‘আমরা রোমাঞ্চিত, আনন্দিত। তবে আমাদের অবশ্যই নিজেদের পা মাটিতে রাখতে হবে।’

About admin

Check Also

মাঠে অকারণে গড়াগড়ি, আবারো হাসির খোরাক নেইমার

গত ২০১৮ বিশ্বকাপ থেকে শুরু। সামান্য বাধা পেয়ে মাঠে পড়ে গড়াগড়ি খাওয়া, অযথা ডাইভ দেওয়ায় …

Leave a Reply

Your email address will not be published.