নিজেকে ঈসা নবী দাবী করা যুবক গ্রেপ্তার

নিজেকে ঈসা নবী দাবী ও ধর্মের কথা বলে এলাকার মানুষের সঙ্গে চিকিৎসার নামে প্রতারণার অভিযোগে সঞ্জিব রিছিল (৪০) নামের ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। আটক যুবক ঠাকুরগাঁও জেলার বালিডাঙ্গী থানার মাগেরসবাড়ী কাচারীপাড়া গ্রামের শিন্তারাম চিংয়ের পুত্র।

তিনি ছেলেবেলা থেকেই হালুয়াঘাটের জয়রামকুড়া গ্রামে তার খালার বাড়িতে থাকতেন।বৃহস্পতিবার (২ জুন) দুপুরে তাঁকে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। এর আগে বুধবার গভীর রাতে জুগলী ইউনিয়নের জয়রামকুড়া গ্রাম থেকে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়। এ ঘটনায় একই গ্রামের আলাল উদ্দিন বাদী হয়ে থানায় মামলা করেন।

পুলিশ জানায়, তিনি দীর্ঘদিন ধরে নিজেকে ঈসা নবী ও স্থানীয় গ্রামের নিরীহ মানুষদের ধর্মের কথা বলে চিকিৎসার নামে প্রতারণা করে আসছিলেন। তাঁর নিজেকে ঈসা নবী দাবি করা নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়ে।

প্রতিবেশীরা জানান, ছোটবেলা থেকেই তিনি তাঁর খালার বাড়িতে থেকে বড় হয়েছেন। মাঝেমধ্যেই ঢাকায় যেতেন। তিনি মাঝখানে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করে মাদরাসায়ও লেখাপড়া করেছেন। মাঝে কিছুদিন মাশরুম চাষ করেছেন।

বেশ কিছুদিন যাবৎ তিনি বাড়িতে উঁচু বৈঠকখানা বানিয়ে সেখানে তাঁর ধর্মশালা তৈরি করেছেন। তাঁর এখানে ব্যক্তিগত এক নারী মুরিদও রয়েছেন। বাড়ি থেকে খুব একটা বের হতেন না। মাঝে মাঝে আজানের সময় উচ্চ স্বরে গান বাজাতেন।

তাঁরা প্রতিবাদ করলেও শুনতেন না। পরে তিনি নিজেকে ঈসা নবী দাবি করছেন এবং মানুষের সাথে প্রতারণা করছেন। তাঁরা এর বিচার দাবি করেন।হালুয়াঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহিনুজ্জামান খান বলেন,

আমরা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তার বিষয়ে জানতে পারি। সে আমাদের কাছেও ঈসা নবী দাবি ও মানুষকে চিকিৎসার নামে প্রতারণার কথা স্বীকার করেছে। আমরা অভিযোগের ভিত্তিতে তাকে গ্রেপ্তার করে আদালতে প্রেরণ করেছি।

নিজেকে ঈসা নবী দাবী ও ধর্মের কথা বলে এলাকার মানুষের সঙ্গে চিকিৎসার নামে প্রতারণার অভিযোগে সঞ্জিব রিছিল (৪০) নামের ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। আটক যুবক ঠাকুরগাঁও জেলার বালিডাঙ্গী থানার মাগেরসবাড়ী কাচারীপাড়া গ্রামের শিন্তারাম চিংয়ের পুত্র।

তিনি ছেলেবেলা থেকেই হালুয়াঘাটের জয়রামকুড়া গ্রামে তার খালার বাড়িতে থাকতেন।বৃহস্পতিবার (২ জুন) দুপুরে তাঁকে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। এর আগে বুধবার গভীর রাতে জুগলী ইউনিয়নের জয়রামকুড়া গ্রাম থেকে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়। এ ঘটনায় একই গ্রামের আলাল উদ্দিন বাদী হয়ে থানায় মামলা করেন।

পুলিশ জানায়, তিনি দীর্ঘদিন ধরে নিজেকে ঈসা নবী ও স্থানীয় গ্রামের নিরীহ মানুষদের ধর্মের কথা বলে চিকিৎসার নামে প্রতারণা করে আসছিলেন। তাঁর নিজেকে ঈসা নবী দাবি করা নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়ে।

প্রতিবেশীরা জানান, ছোটবেলা থেকেই তিনি তাঁর খালার বাড়িতে থেকে বড় হয়েছেন। মাঝেমধ্যেই ঢাকায় যেতেন। তিনি মাঝখানে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করে মাদরাসায়ও লেখাপড়া করেছেন। মাঝে কিছুদিন মাশরুম চাষ করেছেন।

বেশ কিছুদিন যাবৎ তিনি বাড়িতে উঁচু বৈঠকখানা বানিয়ে সেখানে তাঁর ধর্মশালা তৈরি করেছেন। তাঁর এখানে ব্যক্তিগত এক নারী মুরিদও রয়েছেন। বাড়ি থেকে খুব একটা বের হতেন না। মাঝে মাঝে আজানের সময় উচ্চ স্বরে গান বাজাতেন।

তাঁরা প্রতিবাদ করলেও শুনতেন না। পরে তিনি নিজেকে ঈসা নবী দাবি করছেন এবং মানুষের সাথে প্রতারণা করছেন। তাঁরা এর বিচার দাবি করেন।হালুয়াঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহিনুজ্জামান খান বলেন,

আমরা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তার বিষয়ে জানতে পারি। সে আমাদের কাছেও ঈসা নবী দাবি ও মানুষকে চিকিৎসার নামে প্রতারণার কথা স্বীকার করেছে। আমরা অভিযোগের ভিত্তিতে তাকে গ্রেপ্তার করে আদালতে প্রেরণ করেছি।

About admin

Check Also

ফের আদালতে নেয়া হলো শিক্ষিকার স্বামী মামুনকে…মোড় ঘুরলো ঘটনার

এবার নাটোরে শিক্ষিকা খায়রুন নাহারের মৃত্যুর ঘটনায় আটক স্বামী মামুন হোসেনকে আদালতে নেয়া হয়েছে। আজ …

Leave a Reply

Your email address will not be published.