বিএনপি ভোটে না আসলে নির্বাচন গ্রহণযোগ্য হবে না: কে এম নুরুল হুদা

আগামী ভোটে বিএনপি না আসলে নির্বাচন গ্রহণযোগ্য হবে না বলে মন্তব্য করেছেন সদ্য বিদায়ী প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদা। আজ শনিবার এফডিসিতে আয়োজিত ‘বর্তমান নির্বাচন কমিশনের অধীনে গ্রহণযোগ্য জাতীয় নির্বাচন সম্ভব’ শীর্ষক ছায়া সংসদ আলোচনা সভায় উপস্থিত হয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

এ সময় নুরুল হুদা তার বক্তব্যে বলেন: রাজনৈতিক সমঝোতা ছাড়া সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব না। বর্তমান সরকার নির্বাচন কমিশনকে (ইসি) শক্তিশালী করতে নির্বাচন কমিশনার নিয়োগ আইনসহ অনেক আইন করেছে।

এ সময় সুষ্ঠ নির্বাচন অনুষ্ঠানে ব্যর্থ হলে বর্তমান নির্বাচন কমিশনকে পদত্যাগ না করে দায়িত্ব পালন করে যাওয়ার আহ্বান জানিয়ে এসময় তিনি বলেন: দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ হলে, পদত্যাগ কাপুরুষের কাজ বরং দায়িত্বে থেকে দায়িত্ব পালন করা উচিৎ। বন্দুকের নল এবং লাঠি উচিয়ে এদেশে ভোট হয়, এই কালচার থেকে বের হয়ে আসতে হবে

এদিকে নির্বাচনের সময় ১২টি সংস্থা দিয়ে ভোট করার নিয়ম পৃথিবীর কোথাও নাই। এসব বন্ধ হলে গণতন্ত্র রক্ষা হবে বলে এসময় মন্তব্য করেন সাবেক এ প্রধান নির্বাচন কমিশনার।

আগামী ভোটে বিএনপি না আসলে নির্বাচন গ্রহণযোগ্য হবে না বলে মন্তব্য করেছেন সদ্য বিদায়ী প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদা। আজ শনিবার এফডিসিতে আয়োজিত ‘বর্তমান নির্বাচন কমিশনের অধীনে গ্রহণযোগ্য জাতীয় নির্বাচন সম্ভব’ শীর্ষক ছায়া সংসদ আলোচনা সভায় উপস্থিত হয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

এ সময় নুরুল হুদা তার বক্তব্যে বলেন: রাজনৈতিক সমঝোতা ছাড়া সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব না। বর্তমান সরকার নির্বাচন কমিশনকে (ইসি) শক্তিশালী করতে নির্বাচন কমিশনার নিয়োগ আইনসহ অনেক আইন করেছে।

এ সময় সুষ্ঠ নির্বাচন অনুষ্ঠানে ব্যর্থ হলে বর্তমান নির্বাচন কমিশনকে পদত্যাগ না করে দায়িত্ব পালন করে যাওয়ার আহ্বান জানিয়ে এসময় তিনি বলেন: দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ হলে, পদত্যাগ কাপুরুষের কাজ বরং দায়িত্বে থেকে দায়িত্ব পালন করা উচিৎ। বন্দুকের নল এবং লাঠি উচিয়ে এদেশে ভোট হয়, এই কালচার থেকে বের হয়ে আসতে হবে

এদিকে নির্বাচনের সময় ১২টি সংস্থা দিয়ে ভোট করার নিয়ম পৃথিবীর কোথাও নাই। এসব বন্ধ হলে গণতন্ত্র রক্ষা হবে বলে এসময় মন্তব্য করেন সাবেক এ প্রধান নির্বাচন কমিশনার।

এ সময় নুরুল হুদা তার বক্তব্যে বলেন: রাজনৈতিক সমঝোতা ছাড়া সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব না। বর্তমান সরকার নির্বাচন কমিশনকে (ইসি) শক্তিশালী করতে নির্বাচন কমিশনার নিয়োগ আইনসহ অনেক আইন করেছে।

এ সময় সুষ্ঠ নির্বাচন অনুষ্ঠানে ব্যর্থ হলে বর্তমান নির্বাচন কমিশনকে পদত্যাগ না করে দায়িত্ব পালন করে যাওয়ার আহ্বান জানিয়ে এসময় তিনি বলেন: দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ হলে, পদত্যাগ কাপুরুষের কাজ বরং দায়িত্বে থেকে দায়িত্ব পালন করা উচিৎ। বন্দুকের নল এবং লাঠি উচিয়ে এদেশে ভোট হয়, এই কালচার থেকে বের হয়ে আসতে হবে

এদিকে নির্বাচনের সময় ১২টি সংস্থা দিয়ে ভোট করার নিয়ম পৃথিবীর কোথাও নাই। এসব বন্ধ হলে গণতন্ত্র রক্ষা হবে বলে এসময় মন্তব্য করেন সাবেক এ প্রধান নির্বাচন কমিশনার।

About admin

Check Also

আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে আসছেন সোহেল তাজ

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের আসন্ন কাউন্সিল অধিবেশনে তানজিম আহমদ সোহেল তাজ দলীয় নেতৃত্বে আসছেন বলে আসা …

Leave a Reply

Your email address will not be published.