প্রেমের টানে মালয়েশিয়ার তরুণী কুমিল্লায়

প্রেমের টানে মালয়েশিয়ার পেনাং শহর থেকে কুমিল্লার বরুড়া উপজেলার শিলমুড়ি ইউনিয়নের দীঘলগাঁও গ্রামে ছুটে এসেছেন মালয়েশিয়ার এক তরুণী। নূর আজিমা নামের তরুণী সোমবার (১১ জুলাই) বাংলাদেশে আসেন বলে জানা গেছে। বুধবার (১৩ জুলাই) সকালে শিলমুড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. ইসহাক এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

জানা গেছে, শিলমুড়ি ইউনিয়নের দীঘলগাঁও গ্রামের মৃত নুরুল ইসলামের ছেলে সাইফুল ইসলাম প্রায় ১০ বছর ধরে মালয়েশিয়ার পেনাং শহরে ব্যবসা করেন। ব্যবসার সুবাদে একই শহরের বাসিন্দা নূর আজিমার সঙ্গে পরিচয় হয় তার।

পরে দুজনের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। তবে হঠাৎ করে সোমবার (১১ জুলাই) প্রেমিক সাইফুলের দীঘলগাঁও গ্রামের বাড়িতে ছুটে আসেন মালয়েশিয়ান তরুণী। পরে মঙ্গলবার (১২ জুলাই) সন্ধ্যায় ধর্মীয় রীতি অনুযায়ী উভয়ের সম্মতিতে বিয়ে হয় তাদের।

প্রেমিক সাইফুল বলেন, আজিমা খুব ভালো মনের। সে আমাকে বিয়ের জন্য চাপ দিচ্ছিল। তখন আমি তাকে বলি, বাংলাদেশে এসে আমার পরিবারের সঙ্গে কথা বলো। আমার বাবা-মা যদি চায় তবে আমি তোমাকে বিয়ে করতে পারব। সে আমার কথা মেনে নিয়ে বাংলাদেশে আসার সিদ্ধান্ত নেয়। পরে দুই পরিবারের সম্মতিতে আমরা বিয়ে করি।

প্রেমের টানে মালয়েশিয়ার পেনাং শহর থেকে কুমিল্লার বরুড়া উপজেলার শিলমুড়ি ইউনিয়নের দীঘলগাঁও গ্রামে ছুটে এসেছেন মালয়েশিয়ার এক তরুণী। নূর আজিমা নামের তরুণী সোমবার (১১ জুলাই) বাংলাদেশে আসেন বলে জানা গেছে। বুধবার (১৩ জুলাই) সকালে শিলমুড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. ইসহাক এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

জানা গেছে, শিলমুড়ি ইউনিয়নের দীঘলগাঁও গ্রামের মৃত নুরুল ইসলামের ছেলে সাইফুল ইসলাম প্রায় ১০ বছর ধরে মালয়েশিয়ার পেনাং শহরে ব্যবসা করেন। ব্যবসার সুবাদে একই শহরের বাসিন্দা নূর আজিমার সঙ্গে পরিচয় হয় তার।

পরে দুজনের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। তবে হঠাৎ করে সোমবার (১১ জুলাই) প্রেমিক সাইফুলের দীঘলগাঁও গ্রামের বাড়িতে ছুটে আসেন মালয়েশিয়ান তরুণী। পরে মঙ্গলবার (১২ জুলাই) সন্ধ্যায় ধর্মীয় রীতি অনুযায়ী উভয়ের সম্মতিতে বিয়ে হয় তাদের।

প্রেমিক সাইফুল বলেন, আজিমা খুব ভালো মনের। সে আমাকে বিয়ের জন্য চাপ দিচ্ছিল। তখন আমি তাকে বলি, বাংলাদেশে এসে আমার পরিবারের সঙ্গে কথা বলো। আমার বাবা-মা যদি চায় তবে আমি তোমাকে বিয়ে করতে পারব। সে আমার কথা মেনে নিয়ে বাংলাদেশে আসার সিদ্ধান্ত নেয়। পরে দুই পরিবারের সম্মতিতে আমরা বিয়ে করি।

প্রেমের টানে মালয়েশিয়ার পেনাং শহর থেকে কুমিল্লার বরুড়া উপজেলার শিলমুড়ি ইউনিয়নের দীঘলগাঁও গ্রামে ছুটে এসেছেন মালয়েশিয়ার এক তরুণী। নূর আজিমা নামের তরুণী সোমবার (১১ জুলাই) বাংলাদেশে আসেন বলে জানা গেছে। বুধবার (১৩ জুলাই) সকালে শিলমুড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. ইসহাক এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

জানা গেছে, শিলমুড়ি ইউনিয়নের দীঘলগাঁও গ্রামের মৃত নুরুল ইসলামের ছেলে সাইফুল ইসলাম প্রায় ১০ বছর ধরে মালয়েশিয়ার পেনাং শহরে ব্যবসা করেন। ব্যবসার সুবাদে একই শহরের বাসিন্দা নূর আজিমার সঙ্গে পরিচয় হয় তার।

পরে দুজনের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। তবে হঠাৎ করে সোমবার (১১ জুলাই) প্রেমিক সাইফুলের দীঘলগাঁও গ্রামের বাড়িতে ছুটে আসেন মালয়েশিয়ান তরুণী। পরে মঙ্গলবার (১২ জুলাই) সন্ধ্যায় ধর্মীয় রীতি অনুযায়ী উভয়ের সম্মতিতে বিয়ে হয় তাদের।

প্রেমিক সাইফুল বলেন, আজিমা খুব ভালো মনের। সে আমাকে বিয়ের জন্য চাপ দিচ্ছিল। তখন আমি তাকে বলি, বাংলাদেশে এসে আমার পরিবারের সঙ্গে কথা বলো। আমার বাবা-মা যদি চায় তবে আমি তোমাকে বিয়ে করতে পারব। সে আমার কথা মেনে নিয়ে বাংলাদেশে আসার সিদ্ধান্ত নেয়। পরে দুই পরিবারের সম্মতিতে আমরা বিয়ে করি।

About admin

Check Also

অ’নেক হা’ড্ডাহা’ড্ডি ল’ড়াই করে বি’লের ম’ধ্যে জাল দিয়ে ফা’দ পেতে বি’শাল ব’ড় ব’ড় মা’ছ শি’কার, যা নেট দু’নিয়ায় ব্যা’পক সাড়া জা’গিয়েছে তু’মুল ভা’ইরাল ভিডিও

অনেক হাড্ডাহাড্ডি লড়াই করে বিলের মধ্যে জাল দিয়ে ফাদ পেতে বিশাল বড় বড় মাছ শিকার, …

Leave a Reply

Your email address will not be published.