৫ম ও ৮ম শ্রে’ণি’র স’মা’প’নী প’রী’ক্ষা না থা’ক’লে’ও বৃ’ত্তি ও স’ন’দে’র ব্য’ব’স্থা থা’ক’বে

শিক্ষাক্রমের পরিবর্তনের কারণে ৫ম ও ৮ম শ্রেণির সমাপনী পরীক্ষা না থাকলেও বৃত্তি ও সনদের ব্যবস্থা থাকবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।আজকে সোমবার বিকালে শিক্ষাক্রমের পরিবর্তন নিয়ে একটি গণমাধ্যমের ফেসবুক লাইভে সংযুক্ত হয়ে এ কথা জানিয়েছেন তিনি।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, শিক্ষার্থীরা ২০২৫ সাল থেকে পুরোপুরি নতুন শিক্ষাক্রমে পড়বেন। এটি ২০২৩ সাল থেকে ধাপে ধাপে বাস্তবায়ন করার আগে আসছে জানুয়ারিতে প্রাথমিক ও মাধ্যমিকের ২০০ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পরিবর্তিত শিক্ষাক্রমের পরীক্ষা-নিরীক্ষা শুরু হবে।

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেন, ৩য় শ্রেণি পর্যন্ত পরীক্ষা না রাখা, এসএসসির আগে কোনো পাবলিক পরীক্ষা না নেওয়া,৯ম-১০ম শ্রেণিতে বিজ্ঞান, মানবিক ও বাণিজ্য বিভাগের বিভাজন তুলে দেওয়াসহ একগুচ্ছ পরিবর্তনের কথা বলা হচ্ছে সেখানে।

এছাড়া পরীক্ষার চাপ কমাতে বছর শেষে সামষ্টিক মূল্যায়নের আগে শিক্ষাবর্ষ জুড়ে চলবে শিখনফল মূল্যায়ন।আলোচনার এক পর্যায়ে পঞ্চম ও অষ্টমের সমাপনী পরীক্ষা না থাকলে শিক্ষার্থীদের যে বৃত্তি ছিল তা উঠে যাবে কি না, শিক্ষামন্ত্রীর কাছে তা জানতে চাওয়া হয়।

উত্তরে মন্ত্রী বলেন, বৃত্তি, উপবৃত্তি যেটা ছিল, সেটা প্রয়োজন অনুযায়ী অব্যাহত থাকবে। পাশাপাশি প্রাথমিক সমাপন ও জেএসসি-জেডিসির যে সনদের ব্যবস্থা ছিল, সেটাও থাকবে।

তিনি বলেন, যে একটা পর্যায় শেষ করতে এটা তার একটা স্বীকৃতি, সে পাঁচ বছর পড়েছে, প্রাথমিক শেষ করেছে, সে যদি একটা সনদ পায়, সেটা পরবর্তী পর্যায়ে যাওয়ার জন্য তার আনন্দের একটা যোগান হবে। আমরা সনদটা রাখছি, তবে যেভাবে পরীক্ষাগুলো হত সেভাবে পরীক্ষা হবে না। মূল্যায়নটা হবে।

শিক্ষাক্রমের পরিবর্তনের কারণে ৫ম ও ৮ম শ্রেণির সমাপনী পরীক্ষা না থাকলেও বৃত্তি ও সনদের ব্যবস্থা থাকবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।আজকে সোমবার বিকালে শিক্ষাক্রমের পরিবর্তন নিয়ে একটি গণমাধ্যমের ফেসবুক লাইভে সংযুক্ত হয়ে এ কথা জানিয়েছেন তিনি।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, শিক্ষার্থীরা ২০২৫ সাল থেকে পুরোপুরি নতুন শিক্ষাক্রমে পড়বেন। এটি ২০২৩ সাল থেকে ধাপে ধাপে বাস্তবায়ন করার আগে আসছে জানুয়ারিতে প্রাথমিক ও মাধ্যমিকের ২০০ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পরিবর্তিত শিক্ষাক্রমের পরীক্ষা-নিরীক্ষা শুরু হবে।

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেন, ৩য় শ্রেণি পর্যন্ত পরীক্ষা না রাখা, এসএসসির আগে কোনো পাবলিক পরীক্ষা না নেওয়া,৯ম-১০ম শ্রেণিতে বিজ্ঞান, মানবিক ও বাণিজ্য বিভাগের বিভাজন তুলে দেওয়াসহ একগুচ্ছ পরিবর্তনের কথা বলা হচ্ছে সেখানে।

এছাড়া পরীক্ষার চাপ কমাতে বছর শেষে সামষ্টিক মূল্যায়নের আগে শিক্ষাবর্ষ জুড়ে চলবে শিখনফল মূল্যায়ন।আলোচনার এক পর্যায়ে পঞ্চম ও অষ্টমের সমাপনী পরীক্ষা না থাকলে শিক্ষার্থীদের যে বৃত্তি ছিল তা উঠে যাবে কি না, শিক্ষামন্ত্রীর কাছে তা জানতে চাওয়া হয়।

উত্তরে মন্ত্রী বলেন, বৃত্তি, উপবৃত্তি যেটা ছিল, সেটা প্রয়োজন অনুযায়ী অব্যাহত থাকবে। পাশাপাশি প্রাথমিক সমাপন ও জেএসসি-জেডিসির যে সনদের ব্যবস্থা ছিল, সেটাও থাকবে।

তিনি বলেন, যে একটা পর্যায় শেষ করতে এটা তার একটা স্বীকৃতি, সে পাঁচ বছর পড়েছে, প্রাথমিক শেষ করেছে, সে যদি একটা সনদ পায়, সেটা পরবর্তী পর্যায়ে যাওয়ার জন্য তার আনন্দের একটা যোগান হবে। আমরা সনদটা রাখছি, তবে যেভাবে পরীক্ষাগুলো হত সেভাবে পরীক্ষা হবে না। মূল্যায়নটা হবে।

About admin

Check Also

ছুটি বাড়ছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের

রমজানে চালু থাকবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। প্রাথমিক স্কুল চলবে ২০ রমজান পর্যন্ত। আর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক …

Leave a Reply

Your email address will not be published.