বরের বাড়িতে বিয়ে করতে এলেন কনে

নিয়ম ভেঙে বরের বাড়িতে বিয়ে করতে গেলেন কনে। ব্যতিক্রমী এ বিয়ের আয়োজন সম্পন্ন হয় বুধবার (১৩ জুলাই) দুপুরে ঝিনাইদহের শৈলকুপার মনোহরপুর গ্রামে।কনের বাড়ি শৈলকুপা উপজেলা পরিষদের কলোনিতে। কনে সংস্কৃতিকর্মী ইতি সেলিনা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার পরিবহন ড্রাইভার আব্দুল কাদেরের মেয়ে।

বর দীপ্ত টিভির সাংবাদিক এমএ মালেক শান্ত লস্কর মনোহরপুর গ্রামের সামছুদ্দিন লস্করের ছেলে। বিয়ে পারিবারিকভাবে হয়েছে বলে জানান ইতি সেলিনা। কনেযাত্রীর মধ্যে ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) কানিজ ফাতেমা লিজা, এসিল্যান্ড বনি আমিন, কনের বাবা আব্দুল কাদেরসহ ৪০ থেকে ৫০ জন।

ইতি জানান, তাদের বিয়েটি পারিবারিকভাবে অনুষ্ঠানের মাধ্যমে সম্পন্ন হয়েছে। ‘পুরুষশাসিত সমাজ’ থেকে মেয়েরা যাতে বেরিয়ে আসতে পারে সেজন্য তিনি কনের বাড়িতে নয়; বরের বাড়িতে কনেযাত্রী নিয়ে বিয়ে করতে এসেছেন।

কনের বাবা আব্দুল কাদের বলেন, বরের বাড়িতে মেয়ের বিয়ের অনুষ্ঠানে কনেযাত্রী হিসাবে তিনিসহ তার পরিবারের সদস্যরা এসেছেন। ব্যতিক্রমী এ বিয়েতে আসতে পেরে আমি অত্যন্ত খুশি।

বর এমএ মালেক শান্ত লস্কর বলেন, নিয়ম ভেঙে কনে এসেছেন তাদের বাড়িতে বিয়ে করতে। এই বিয়ে দুই পরিবারের সম্মতিতে সম্পন্ন হয়েছে। কনে তার পূর্বপরিচিত। ৫ লাখ টাকার দেনমোহরে এ বিয়ে সম্পন্ন করা হয়।

ইউএনও কানিজ ফতেমা লিজা বলেন, ব্যতিক্রমী এ বিয়ের কনে ইতি সেলিনা তার পরিবহন ড্রাইভারের কন্যা। বিয়ের অনুষ্ঠানে কনেযাত্রী হিসাবে আমিও উপস্থিত ছিলাম।

নিয়ম ভেঙে বরের বাড়িতে বিয়ে করতে গেলেন কনে। ব্যতিক্রমী এ বিয়ের আয়োজন সম্পন্ন হয় বুধবার (১৩ জুলাই) দুপুরে ঝিনাইদহের শৈলকুপার মনোহরপুর গ্রামে।কনের বাড়ি শৈলকুপা উপজেলা পরিষদের কলোনিতে। কনে সংস্কৃতিকর্মী ইতি সেলিনা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার পরিবহন ড্রাইভার আব্দুল কাদেরের মেয়ে।

বর দীপ্ত টিভির সাংবাদিক এমএ মালেক শান্ত লস্কর মনোহরপুর গ্রামের সামছুদ্দিন লস্করের ছেলে। বিয়ে পারিবারিকভাবে হয়েছে বলে জানান ইতি সেলিনা। কনেযাত্রীর মধ্যে ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) কানিজ ফাতেমা লিজা, এসিল্যান্ড বনি আমিন, কনের বাবা আব্দুল কাদেরসহ ৪০ থেকে ৫০ জন।

ইতি জানান, তাদের বিয়েটি পারিবারিকভাবে অনুষ্ঠানের মাধ্যমে সম্পন্ন হয়েছে। ‘পুরুষশাসিত সমাজ’ থেকে মেয়েরা যাতে বেরিয়ে আসতে পারে সেজন্য তিনি কনের বাড়িতে নয়; বরের বাড়িতে কনেযাত্রী নিয়ে বিয়ে করতে এসেছেন।

কনের বাবা আব্দুল কাদের বলেন, বরের বাড়িতে মেয়ের বিয়ের অনুষ্ঠানে কনেযাত্রী হিসাবে তিনিসহ তার পরিবারের সদস্যরা এসেছেন। ব্যতিক্রমী এ বিয়েতে আসতে পেরে আমি অত্যন্ত খুশি।

বর এমএ মালেক শান্ত লস্কর বলেন, নিয়ম ভেঙে কনে এসেছেন তাদের বাড়িতে বিয়ে করতে। এই বিয়ে দুই পরিবারের সম্মতিতে সম্পন্ন হয়েছে। কনে তার পূর্বপরিচিত। ৫ লাখ টাকার দেনমোহরে এ বিয়ে সম্পন্ন করা হয়।

ইউএনও কানিজ ফতেমা লিজা বলেন, ব্যতিক্রমী এ বিয়ের কনে ইতি সেলিনা তার পরিবহন ড্রাইভারের কন্যা। বিয়ের অনুষ্ঠানে কনেযাত্রী হিসাবে আমিও উপস্থিত ছিলাম।

বর এমএ মালেক শান্ত লস্কর বলেন, নিয়ম ভেঙে কনে এসেছেন তাদের বাড়িতে বিয়ে করতে। এই বিয়ে দুই পরিবারের সম্মতিতে সম্পন্ন হয়েছে। কনে তার পূর্বপরিচিত। ৫ লাখ টাকার দেনমোহরে এ বিয়ে সম্পন্ন করা হয়।

About admin

Check Also

স্যার আমি আস্তে করি, চেষ্টা করি যেন বেশি ব্যথা না পায়

ক্লাস রুটিন আর পরীক্ষার রুটিনের বাইরে ভিন্ন রকম এক রুটিন চালু করেছে রাঙ্গুনিয়ার এক কওমি …

Leave a Reply

Your email address will not be published.