সাড়ে ৩ ঘণ্টা শিশু কোলে নিয়ে দাঁড়িয়ে মা, বসতে দেয়নি কেউ

ট্রেনের মধ্যে খুবই অল্প বয়সী শিশুকোলে দাঁড়িয়ে ছিলেন এক নারী। প্রায় ৩ ঘণ্টা দাঁড়িয়ে থাকলেও কেউ বসার জন্য জায়গা দেননি কেউ। পাশে বসে অনেকেই মোবাইল স্ক্রলিং করছিলেন, তাকিয়ে দেখছিলেন ওই নারীর দিকে কিন্তু কারো কোনো প্রতিক্রিয়া লক্ষ্য করা যায়নি।

এমন একটি পোস্ট বাংলাদেশ রেলওয়ে ফ্যান গ্রুপে ঘুরে বেড়াচ্ছে। একজন প্রত্যক্ষদর্শীর বরাতে পোস্টে বলা হচ্ছে, ঘটনাটি দেওয়ানগঞ্জ থেকে ছেড়ে আসা তিস্তা এক্সপ্রেস এর মহিলাটি তার ২ মাসের বাচ্চাকে নিয়ে ঢাকার উদ্দেশে রওনা হয় বিকাল ৩টায়,বিকাল ৫ টায় তিনি তার আসনটি হারান। কারণ টিকিটের সংকট, পরে বিকাল ৫ টা থেকে রাত সাড়ে ৮ টা পর্যন্ত তিনি দাড়িয়ে বাচ্চাকে কোলে নিয়ে ঢাকায় পৌঁছান।

বিষয়টি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বেশ প্রতিক্রিয়া হচ্ছে। মানুষের স্বাভাবিক জ্ঞানবুদ্ধি লোপ পাচ্ছে বলেই একশ্রেণীর নেটিজেন বলছেন। পোস্টদাতাই বলছেন, মনুষত্ব নেই সেসকল মানুষদের যারা দেখছিলেন অথচ ওই মা’কে একটু জায়গা ছেড়ে দেননি।

কেউ কেউ আবার প্রকৃত টিকেটধারীদের পক্ষেও কথা বলছেন, বলছেন ৮ ঘণ্টা লাইনে দাঁড়িয়ে দেখুন, তারপরে মানবিকতা দেখান। তবে এই পোস্ট রেলওয়ে ফেসবুক গ্রুপ থেকে ছড়িয়ে পড়েছে সর্বত্র, হাজার হাজার মন্তব্যে সয়লাব সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম। সূত্র, কালের কণ্ঠ।

ট্রেনের মধ্যে খুবই অল্প বয়সী শিশুকোলে দাঁড়িয়ে ছিলেন এক নারী। প্রায় ৩ ঘণ্টা দাঁড়িয়ে থাকলেও কেউ বসার জন্য জায়গা দেননি কেউ। পাশে বসে অনেকেই মোবাইল স্ক্রলিং করছিলেন, তাকিয়ে দেখছিলেন ওই নারীর দিকে কিন্তু কারো কোনো প্রতিক্রিয়া লক্ষ্য করা যায়নি।

এমন একটি পোস্ট বাংলাদেশ রেলওয়ে ফ্যান গ্রুপে ঘুরে বেড়াচ্ছে। একজন প্রত্যক্ষদর্শীর বরাতে পোস্টে বলা হচ্ছে, ঘটনাটি দেওয়ানগঞ্জ থেকে ছেড়ে আসা তিস্তা এক্সপ্রেস এর মহিলাটি তার ২ মাসের বাচ্চাকে নিয়ে ঢাকার উদ্দেশে রওনা হয় বিকাল ৩টায়,বিকাল ৫ টায় তিনি তার আসনটি হারান। কারণ টিকিটের সংকট, পরে বিকাল ৫ টা থেকে রাত সাড়ে ৮ টা পর্যন্ত তিনি দাড়িয়ে বাচ্চাকে কোলে নিয়ে ঢাকায় পৌঁছান।

বিষয়টি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বেশ প্রতিক্রিয়া হচ্ছে। মানুষের স্বাভাবিক জ্ঞানবুদ্ধি লোপ পাচ্ছে বলেই একশ্রেণীর নেটিজেন বলছেন। পোস্টদাতাই বলছেন, মনুষত্ব নেই সেসকল মানুষদের যারা দেখছিলেন অথচ ওই মা’কে একটু জায়গা ছেড়ে দেননি।

কেউ কেউ আবার প্রকৃত টিকেটধারীদের পক্ষেও কথা বলছেন, বলছেন ৮ ঘণ্টা লাইনে দাঁড়িয়ে দেখুন, তারপরে মানবিকতা দেখান। তবে এই পোস্ট রেলওয়ে ফেসবুক গ্রুপ থেকে ছড়িয়ে পড়েছে সর্বত্র, হাজার হাজার মন্তব্যে সয়লাব সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম। সূত্র, কালের কণ্ঠ।

ট্রেনের মধ্যে খুবই অল্প বয়সী শিশুকোলে দাঁড়িয়ে ছিলেন এক নারী। প্রায় ৩ ঘণ্টা দাঁড়িয়ে থাকলেও কেউ বসার জন্য জায়গা দেননি কেউ। পাশে বসে অনেকেই মোবাইল স্ক্রলিং করছিলেন, তাকিয়ে দেখছিলেন ওই নারীর দিকে কিন্তু কারো কোনো প্রতিক্রিয়া লক্ষ্য করা যায়নি।

এমন একটি পোস্ট বাংলাদেশ রেলওয়ে ফ্যান গ্রুপে ঘুরে বেড়াচ্ছে। একজন প্রত্যক্ষদর্শীর বরাতে পোস্টে বলা হচ্ছে, ঘটনাটি দেওয়ানগঞ্জ থেকে ছেড়ে আসা তিস্তা এক্সপ্রেস এর মহিলাটি তার ২ মাসের বাচ্চাকে নিয়ে ঢাকার উদ্দেশে রওনা হয় বিকাল ৩টায়,বিকাল ৫ টায় তিনি তার আসনটি হারান। কারণ টিকিটের সংকট, পরে বিকাল ৫ টা থেকে রাত সাড়ে ৮ টা পর্যন্ত তিনি দাড়িয়ে বাচ্চাকে কোলে নিয়ে ঢাকায় পৌঁছান।

বিষয়টি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বেশ প্রতিক্রিয়া হচ্ছে। মানুষের স্বাভাবিক জ্ঞানবুদ্ধি লোপ পাচ্ছে বলেই একশ্রেণীর নেটিজেন বলছেন। পোস্টদাতাই বলছেন, মনুষত্ব নেই সেসকল মানুষদের যারা দেখছিলেন অথচ ওই মা’কে একটু জায়গা ছেড়ে দেননি।

কেউ কেউ আবার প্রকৃত টিকেটধারীদের পক্ষেও কথা বলছেন, বলছেন ৮ ঘণ্টা লাইনে দাঁড়িয়ে দেখুন, তারপরে মানবিকতা দেখান। তবে এই পোস্ট রেলওয়ে ফেসবুক গ্রুপ থেকে ছড়িয়ে পড়েছে সর্বত্র, হাজার হাজার মন্তব্যে সয়লাব সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম। সূত্র, কালের কণ্ঠ।

About admin

Check Also

লুঙ্গি ধরে টান দেয়ায় শ্যালিকাকে মেরে ঝুলিয়ে রাখে নতুন দুলাভাই

এবার কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরীর রাখানায় খুশি হত্যা ঘটনায় নতুন বর (জেঠাতো বোনের স্বামী) আব্দুল গনিকে গ্রেপ্তার …

Leave a Reply

Your email address will not be published.