যে উপহার দিয়ে ‘বাবা’ সৃজিতকে মুগ্ধ করলেন আইরা

কলকাতার পরিচালক সৃজিত মুখোপাধ্যায় এবং বাংলাদেশি অভিনেত্রী রাফিয়াত রশীদ মিথিলা দম্পতির মেয়ে আইরা। মিথিলাকে বিয়ে করার সুবাদে তার সাবেক স্বামী অভিনেতা-গায়ক তাহসান রহমানের ঔরষে জন্ম নেয়া ছোট্ট আইরার বাবা বনে গেছেন সৃজিতও।

আইরাও সৃজিতকে খুব ভালোভাবেই আপন করে নিয়েছে। সম্প্রতি মেয়ে আয়রার কাছে একটি ছবি উপহার পেয়েছেন এই নির্মাতা। মেয়ের আঁকা ছবি দেখে আপ্লুত ও মুগ্ধ সৃজিত।

টলিউডের জনপ্রিয় নির্মাতা মুখোপাধ্যায়। কাকাবাবু, ফেলুদার মতো নানা জনপ্রিয় রহস্যকাহিনি বানিয়েছেন তিনি। যদিও পরিচালকের পছন্দের গোয়েন্দা এক বিদেশি চরিত্র। আর তিনি প্রিয় সেই গোয়েন্দার ছবি উপহার পানমেয়ে আইরার কাছ থেকে। ইতিমধ্যে সোশ্যাল মিডিয়ায় সৃজিত তা শেয়ারও করেছেন বেশ গর্বের সঙ্গে।

‘আমার প্রিয় মানুষটা আমার প্রিয়া গোয়েন্দাকে এঁকেছে’ লিখে ছবিটা শেয়ার করেন সৃজিত। যেখানে দেখা গেল খাতায় যত্ন সহকারে এগ হেডেড ডিটেকটিভকে ফুটিয়ে তুলেছে আইরা। আর তারপর ড্রইংয়ের খাতার উপর মুখ রেখে শুয়ে আছে সে।

সৃজিত বহুবার নিজের পাহো প্রেমের কথা বলেছেন। আসলে গোয়েন্দাদের কাল্পনিক জগতে বরাবরই কড়া টক্কর পাহো আর হোমসের। দুই চরিত্রই খুব জনপ্রিয় সব বয়সীদের মধ্যে।

মূলত ফেলুদা নিয়ে সৃজিতের দ্বিতীয় ওয়েবসিরিজ ‘দার্জিলিং জমজমাট’ নেটপাড়ার থেকে ভালোই ভালোবাসা কুড়িয়েছে। দর্শক টোটা রায়চৌধুরীকে বেশ ভালোবাসাও দিয়েছে ফেলুদা হিসেবে। তবে বাঙালি পরিচালকের কপাল মন্দ বলিউডে। ‘শের দিল’ আর ‘সাবাশ মিঠু’ সেভাবে ছাপ ফেলতে পারেনি। তার থেকে বাংলা ছবি ‘এক্স = প্রেম’ নিয়ে মাতামাতি হয়েছে বেশি।

কলকাতার পরিচালক সৃজিত মুখোপাধ্যায় এবং বাংলাদেশি অভিনেত্রী রাফিয়াত রশীদ মিথিলা দম্পতির মেয়ে আইরা। মিথিলাকে বিয়ে করার সুবাদে তার সাবেক স্বামী অভিনেতা-গায়ক তাহসান রহমানের ঔরষে জন্ম নেয়া ছোট্ট আইরার বাবা বনে গেছেন সৃজিতও।

আইরাও সৃজিতকে খুব ভালোভাবেই আপন করে নিয়েছে। সম্প্রতি মেয়ে আয়রার কাছে একটি ছবি উপহার পেয়েছেন এই নির্মাতা। মেয়ের আঁকা ছবি দেখে আপ্লুত ও মুগ্ধ সৃজিত।

টলিউডের জনপ্রিয় নির্মাতা মুখোপাধ্যায়। কাকাবাবু, ফেলুদার মতো নানা জনপ্রিয় রহস্যকাহিনি বানিয়েছেন তিনি। যদিও পরিচালকের পছন্দের গোয়েন্দা এক বিদেশি চরিত্র। আর তিনি প্রিয় সেই গোয়েন্দার ছবি উপহার পানমেয়ে আইরার কাছ থেকে। ইতিমধ্যে সোশ্যাল মিডিয়ায় সৃজিত তা শেয়ারও করেছেন বেশ গর্বের সঙ্গে।

‘আমার প্রিয় মানুষটা আমার প্রিয়া গোয়েন্দাকে এঁকেছে’ লিখে ছবিটা শেয়ার করেন সৃজিত। যেখানে দেখা গেল খাতায় যত্ন সহকারে এগ হেডেড ডিটেকটিভকে ফুটিয়ে তুলেছে আইরা। আর তারপর ড্রইংয়ের খাতার উপর মুখ রেখে শুয়ে আছে সে।

সৃজিত বহুবার নিজের পাহো প্রেমের কথা বলেছেন। আসলে গোয়েন্দাদের কাল্পনিক জগতে বরাবরই কড়া টক্কর পাহো আর হোমসের। দুই চরিত্রই খুব জনপ্রিয় সব বয়সীদের মধ্যে।

মূলত ফেলুদা নিয়ে সৃজিতের দ্বিতীয় ওয়েবসিরিজ ‘দার্জিলিং জমজমাট’ নেটপাড়ার থেকে ভালোই ভালোবাসা কুড়িয়েছে। দর্শক টোটা রায়চৌধুরীকে বেশ ভালোবাসাও দিয়েছে ফেলুদা হিসেবে। তবে বাঙালি পরিচালকের কপাল মন্দ বলিউডে। ‘শের দিল’ আর ‘সাবাশ মিঠু’ সেভাবে ছাপ ফেলতে পারেনি। তার থেকে বাংলা ছবি ‘এক্স = প্রেম’ নিয়ে মাতামাতি হয়েছে বেশি।

সূত্র: হিন্দুস্তান টাইমস

About admin

Check Also

বুকের ঘাম বিক্রি করে কোটিপতি অভিনেত্রী!(ভিডিও)

সূর্যের প্রখর রোদে বসে রয়েছেন লাস্যময়ী অভিনেত্রী। তাঁর পুরো শরীর ঘামে ভিজে যাচ্ছে। কিন্তু, এটাই …

Leave a Reply

Your email address will not be published.