গাইবান্ধায় একসঙ্গে তিন সন্তানের জন্ম

এবার গাইবান্ধায় একসঙ্গে তিন সন্তানের জন্ম দিয়েছেন জেসমিন বেগম (২৩) নামের এক গৃহবধূ। আজ শুক্রবার ৫ আগস্ট ভোর ৪টার দিকে গাইবান্ধা ক্লিনিকে অস্ত্রোপচার ছাড়াই তিন সন্তানের জন্ম দেন তিনি।

নবজাতকদের মধ্যে দুটি কন্যা সন্তান ও এক পুত্র সন্তান। জেসমিন আকতারের বাড়ি সাঘাটা উপজেলার পদুমশহর ইউনিয়নের বোনারপাড়া এলাকার মথরপাড়া গ্রামে। তিনি ওই গ্রামের কৃষক আহসান কবিরের স্ত্রী।

এদিকে সদ্য জন্ম নেওয়া শিশুদের বাবা আহসান কবির বলেন, ‘বৃহস্পতিবার রাতে খাবার শেষে ঘুমিয়ে পড়ি। হঠাৎ জেসমিন বেগমের প্রসব বেদনা ওঠে। পরে রাতেই তাকে গাইবান্ধা ক্লিনিকে নিয়ে আসি। সেখানে দায়িত্বরত চিকিৎসক জেসমিনকে দেখে স্বাভাবিকভাবে প্রসবের কথা জানান।’

তিনি আরও বলেন, ‘শুক্রবার ভোর ৪টার দিকে ক্লিনিকেই স্বাভাবিক প্রসবে প্রথমে এক মেয়ে সন্তানের জন্ম দেন জেসমিন। পরে ছেলে সন্তান, তারপর আবার এক মেয়ে সন্তানের জন্ম দেন। চিকিৎসকের পরামর্শে শিশুদের চিকিৎসার জন্য রংপুরে নিয়ে যাচ্ছি।’

এ বিষয়ে গাইবান্ধা ক্লিনিকের মালিক ডা. একরাম হোসেন বলেন, ‘জেসমিন বেগম সুস্থ থাকলেও তিন নবজাতক অসুস্থ। উন্নত চিকিৎসার জন্য তাদের রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।’

এবার গাইবান্ধায় একসঙ্গে তিন সন্তানের জন্ম দিয়েছেন জেসমিন বেগম (২৩) নামের এক গৃহবধূ। আজ শুক্রবার ৫ আগস্ট ভোর ৪টার দিকে গাইবান্ধা ক্লিনিকে অস্ত্রোপচার ছাড়াই তিন সন্তানের জন্ম দেন তিনি।

নবজাতকদের মধ্যে দুটি কন্যা সন্তান ও এক পুত্র সন্তান। জেসমিন আকতারের বাড়ি সাঘাটা উপজেলার পদুমশহর ইউনিয়নের বোনারপাড়া এলাকার মথরপাড়া গ্রামে। তিনি ওই গ্রামের কৃষক আহসান কবিরের স্ত্রী।

এদিকে সদ্য জন্ম নেওয়া শিশুদের বাবা আহসান কবির বলেন, ‘বৃহস্পতিবার রাতে খাবার শেষে ঘুমিয়ে পড়ি। হঠাৎ জেসমিন বেগমের প্রসব বেদনা ওঠে। পরে রাতেই তাকে গাইবান্ধা ক্লিনিকে নিয়ে আসি। সেখানে দায়িত্বরত চিকিৎসক জেসমিনকে দেখে স্বাভাবিকভাবে প্রসবের কথা জানান।’

তিনি আরও বলেন, ‘শুক্রবার ভোর ৪টার দিকে ক্লিনিকেই স্বাভাবিক প্রসবে প্রথমে এক মেয়ে সন্তানের জন্ম দেন জেসমিন। পরে ছেলে সন্তান, তারপর আবার এক মেয়ে সন্তানের জন্ম দেন। চিকিৎসকের পরামর্শে শিশুদের চিকিৎসার জন্য রংপুরে নিয়ে যাচ্ছি।’

এ বিষয়ে গাইবান্ধা ক্লিনিকের মালিক ডা. একরাম হোসেন বলেন, ‘জেসমিন বেগম সুস্থ থাকলেও তিন নবজাতক অসুস্থ। উন্নত চিকিৎসার জন্য তাদের রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।’

About admin

Check Also

ব’রের মু’খে এ’মন ক’থা শু’নে অ’বাক মে’য়ের বা’বা সা’থে স’কল আ’ত্মীয়-স্ব’জন

আপনারা সবাই জানেন যে বড়লোকদের আজকাল বিয়ের কাজ কর্ম বড়ই যাক জমকের সাথে হয়। যৌ’তুকের …

Leave a Reply

Your email address will not be published.