ইসলাম মেনেই চলব, আর্থিক নীতি বদলাব না : এরদোগান

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়িব এরদোগান বলেছেন, ইসলাম মেনেই তিনি সুদের হার বাড়াচ্ছেন না। টিভিতে দেয়া এক ভাষণে এরদোগান এ কথা বলেন। খবর ডিডবিøউর। ডলারের বিপরীতে তুরস্কের মুদ্রা লিরার দাম পড়ে যাওয়ার মধ্যে এরদোগান জানান, তিনি আর্থিক নীতি বদলাবেন না।

এরদোগানের ভাষণের পর লিরার দাম সামান্য বাড়ে। তুরস্কে এখন জিনিসপত্রের দাম আকাশছোঁয়া। মুদ্রাস্ফীতির হার ২০ শতাংশ ছাড়িয়েছে। তা সত্তে¡ও এরদোগান সেন্ট্রাল ব্যাংককে সুদের হার কমাতে বলছেন। বিশেষজ্ঞদের ধারণা, এই নীতির ফলে আগামী কয়েক মাসের মধ্যে মুদ্রাস্ফীতির হার ৩০ শতাংশ ছাড়িয়ে যেতে পারে।

এরদোগান জানান, তিনি ইসলামকে অনুসরণ করেই চলবেন। সে জন্যই তিনি সুদের হার কম করতে বলেছেন। তবে তিনি ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের সাহায্য করবেন এবং পেনশন তহবিলে আরও অর্থ দেবেন। তুর্কি প্রেসিডেন্ট বলেন, একজন মুসলিম হিসাবে আমি সেটাই করব, যা আমাকে ধর্ম করতে বলে।

সেটিই আমার কাছে একমাত্র নীতিনির্দেশিকা। লিরার দাম কমে যাওয়ায় তুরস্কের সাধারণ মানুষ এখন নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিস কেনার ক্ষেত্রে বিপাকে পড়েছেন। বিদেশি ক‚টনীতিকরা মনে করছেন, এরদোগান ভাবছেন, আর্থিক উন্নতি হলে ২০২৩ সালের নির্বাচনে তিনি সহজে জিতবেন।

এর ফলে তিন দশক ধরে তিনি তুরস্কে ক্ষমতায় থাকতে পারবেন। এরদোগান মনে করেন, মুদ্রার দাম কম হলে রফতানি বাড়বে। কিন্তু অর্থনীতিবিদরা বলছেন, মুদ্রাস্ফীতি কমাতে হলে সুদের হার বাড়াতে হবে। অপরদিকে এরদোগান প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন, তিনি মুদ্রাস্ফীতির হার চার শতাংশের মধ্যে রাখবেন।

গতমাসে তুর্কি প্রেসিডেন্ট বলেছিলেন, তিনি আর্থিক স্বাধীনতার লড়াই লড়ছেন। লক্ষ্য হলো, তুরস্ককে বিদেশি বিনিয়োগের নির্ভরতা থেকে বের করে আনা। অপর এক খবরে বলা হয়, ডলারের বিপরীতে লিরার দাম পড়ে যাওয়ার মধ্যে ভাষণ দিয়েছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েব এরদোগান।

এর পর থেকে ডলারের বিপরীতে লিরার দাম বাড়তে দেখা গেছে। ডলারের বিপরীতে সোমবার এক ঘণ্টায় লিরার দাম বেড়েছে ২২ শতাংশ আর চার ঘণ্টায় বেড়েছে ৩৩ শতাংশ। তুরস্কের রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম আনাদোলু নিউজের সাংবাদিক সারোয়ার আলম জানান,

এরদোগানের নতুন অর্থনৈতিক মডেলের ঘোষণার পর হু হু করে বাড়তে থাকে লিরার দাম। সন্ধ্যা ৭টায় এক ডলারের মুদ্রামান ছিল ১৮.৩৫ লিরা। কিন্তু রাত ৮টায় তা দাঁড়ায় ১৪.৬৫ লিরায়। এর পর রাত ১১টায় দাম দাঁড়ায় ১২.৭৫ লিরায়।

মঙ্গলবার সকালে দাম আরও বেড়ে দাঁড়ায় ১১.৯১ লিরায়। তিনি জানান, লিরার এই মূল্যবৃদ্ধি অব্যাহত থাকলে এরদোগান আগাম নির্বাচনের ঘোষণা দিতে পারেন এবং ২০২২ সালের শেষ দিকে নির্বাচনে যেতে পারে তুরস্ক। টিভিতে দেওয়া এক ভাষণে এরদোগান জানান, তিনি ইসলামকে অনুসরণ করেই চলবেন।

সে জন্যই তিনি সুদের হার কম করতে বলেছেন। তবে তিনি ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের সাহায্য করবেন এবং পেনশন তহবিলে আরও অর্থ দেবেন। তুর্কি প্রেসিডেন্ট বলেন, একজন মুসলিম হিসাবে আমি সেটিই করব, যা আমাকে ধর্ম করতে বলে। সেটিই আমার কাছে একমাত্র নীতিনির্দেশিকা। ডিডবিøউ, আনাদোলু।

About admin

Check Also

বুকের দুধ বিক্রি করে এই মেয়ে কোটিপতি!

বিশ্বাসকে পুঁজি করেই সাইপ্রাসের এক নারী সম্পদের পাহাড় গড়েছেন। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম ইন্ডিপেনডেন্ট সম্প্রতি এক প্রতিবেদনে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.